Home Home Page Rank NTV ONLINE ETV ONLINE BANGLA  VISION ONLINE CHANEL I ONLINE EKATTOR TV ONLINE
২৩-০৪-২০১৪ বুধবার

 ভিজিট করুন মোবাইল ভার্সন:  m.dainiksylhet.com 

 

 
 
 
মোবাইল ভার্সনে যারা আছেন
Free Global Counter
 
এই জনপদ
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধি:
সুনামগঞ্জ জেলার ছাতকে কালাচান দাস (৩৫) নামের এক জেলের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে উপজেলার ছৈলা-আফজলাবাদ ইউনিয়নের ছৈলাগাঁও গ্রামের হরিবল দাসের ছেলে। মঙ্গলবার রাত ১১টায় হাওর থেকে ওই জেলের লাশ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়,গত সোমবার রাতে বাড়ির পাশ্ববর্তী হাওরে মাছ শিকার করতে গিয়ে কালাচান দাস নিখোঁজ হয়ে যায়। অনেক খোঁজখুজির পর মঙ্গলবার রাতে এলাকার লোকজন হাওরের পানিতে লাশ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেয়। ছাতক থানার ওসি শাহ জালাল মুন্সি বলেন,নিহত জেলের লাশ উদ্ধার করে আজ বধুবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
               

 
 
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ 
ছাতকে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ষাড়ের লড়াই মঙ্গলবার বৌলা গ্রামের মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ষাড়ের লড়াইয়ে অংশ নিতে বিভিন্ন অঞ্চলের অর্ধশতাধিক ষাঁড় বৌলা-তাতিকোনা মাঠে জড়ো হয়। ষাড়ের লড়াই দেখতে মঙ্গলবার সকাল থেকে ছাতকের জাউয়া, গোবিন্দগঞ্জ, দোয়ারা, কোম্পানীগঞ্জের হাজারো উৎসুক জনতা বৌলা গ্রামের মাঠে এসে জড়ো হয়। অংশ গ্রহনকারী ষাড়গুলোকে সাদা মানিক, কালাবারুদ, লাল বারুদ, কালা নাগ, কালা রাজ, বস-২, আয়লাসহ বিভিন্ন বৈচিত্রময় নামে নামকরন করা হয়। স্থানীয়দের উদ্যোগে আয়োজিত দিনব্যাপী এ প্রতিযোগিতা শেষে বিকেলে বিজয়ী ষাড়ের মালিকদের হাতে আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে ৩টি রঙ্গিন টেলিভিশন, ৫টি মোবাইল সেট, ৯টি ফিল্টারসহ বিভিন্ন আকর্ষনীয় পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।
               

 
 
 
 
 
 
 

দক্ষিণ সুরমা উপজেলার তেতলী ইউনিয়ন পরিষদের হল রুমে এনজিও সংস্থা পি. কে. এস এর আর্থিক সহযোগিতায় পল্লী সহায়তা ফাউন্ডেশন ও টি এম এস এস-এর উদ্যোগে মঙ্গলবার সকাল ১১টায় একটি ফ্রি স্বাস্থ্য সেবা ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। ফ্রি স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রমের মধ্যে ছিল চর্ম ও যৌন, মেডিসিন ও শিশু রোগের ব্যবস্থাপত্র প্রদান ও বিনামূল্যে ঔষধ বিতরণ। টি এম এস এস-এর উদ্যোগে স্বাস্থ্যসেবা পরিচালনার ফলে অত্র এলাকার গরীব-দুঃখী ও দুস্থরা স্বাস্থসেবা পেয়ে উপকৃত হচ্ছেন।
স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তেতলী ইউপি চেয়ারম্যান উসমান আলী। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউনিয়ন সচিব নজরুল ইসলাম, ৩নং ওয়ার্ড মেম্বার আকবর আলী, ৮নং ওয়ার্ড মেম্বার ফারুক মিয়া, ৯নং ওয়ার্ড মেম্বার ফারুক আহমদ।
স্বাস্থ্য সেবা প্রদানকারী ডাক্তারা হলেন নর্থইষ্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ মোঃ মিসবাহ উদ্দিন, গোলাপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিসিন ও চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ শাহিনুর রহমান শাহিন। উপস্থিত ছিলেন টি এম এস এস-এর কো-অর্ডিনেটর মোঃ মনোওয়ার হোসেন, সমৃদ্ধি কর্মসূচী এরিয়া ম্যানেজার মোঃ কাসেদুল জান্নাত, হেলথ এসিস্টেন্ট রবিউল ইসলাম, কৃষিবিদ মনোয়ারুল ইসলাম, এমডি মোঃ হাসমত আলী, শাখা ব্যবস্থাপক রাজু আহমদ সহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ। এছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ সুরমা হাজী মবশ্বির আলী কল্যাণ ট্রাস্টের প্রচার সম্পাদক শরীফ আহমদ, তেতলী ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা খিজির আহমদ চৌধুরী, এমরান আহমদ, রাসেল আহমদ, গ্রাম আদালত কর্মকর্তা ফয়েজ আহমদ প্রমুখ।
               

 
 
 
 
 
 
 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জ-৮বর্ডার গার্ড (বিজিবি) ব্যাটালিয়ন কমান্ডিং অফিসার অধিনায়ক লে.কর্ণেল মোহাম্মদ গোলাম মহিউদ্দিন খন্দকার (পি,এস,সি,জি) মঙ্গলবার দুপুরে সীমান্তের ডলুুরা বর্ডার হাট পরিদর্শন করেছেন। পরিদর্শন শেষে হাটের ক্রেতা-বিক্রেতাসহ দায়িত্বরত বিজিবি-বিএসএফ কর্মকর্তাদের সাথে কুশল বিনিময় করেন অধিনায়ক।
উল্লেখ্য,কৃষিজাত পণ্যদ্রব্য শুল্কমুক্ত ক্রয়-বিক্রয়সহ দুই দেশের আন্তরিকতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সরকার ২০১১ সালের ২৩ জুলাই কুড়িগ্রাম জেলায় দেশের ১ম বর্ডার হাট চালু হওয়ার কয়েকদিন পরেই সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার ডলুরা সীমান্তে এ হাট চালু হয়। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অধিনায়ক লে.কর্ণেল মোহাম্মদ গোলাম মহিউদ্দিন খন্দকার (পি,এস,সি,জি) বিষয়টি নিশ্চিত করে তিনি জানান,জেলার প্রায় ৯৭ কিলোমিটার সীমান্ত এলাকা মাদকমুক্ত,নারী-শিশু পাচার এবং চোরাচালান প্রতিরোধে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে প্রতিটি বিওপি ক্যাম্পে দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের সর্বদা সজাগ দৃষ্টির জন্য জোর তাগিদ দেয়া হয়েছে।
               

 
 
 
 
 
 
 

কাজী জমিরুল ইসলাম মমতাজ ,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
সুনামগঞ্জের দিরাই ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায়  অপুষ্টিতে আক্রান্ত শূন্য থেকে ৩ বছর বয়সী শিশু ও গর্ভবর্তী মায়েদের বিভিন্ন রোগ বালাই থেকে মুক্ত এবং সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবন যাপনে আরো বেশী যতœবান বিষয়ে এক অবহিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুর ১টায় সিভিল সার্জন সুনামগঞ্জের আয়োজনে ও এনজিও সংস্থা কেয়ার বাংলাদেশের সহযোগিতায় শহরের স্বাস্থ্য প্রশিক্ষণ ভবণে এ অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সরকারী,বেসরকারী ও বিভিন্ন এনজিও সংস্থার প্রতিনিধিরা অংশ নেয়। ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ অজিত চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে ও সিভিল সার্জন অফিসের টেকনিশিয়ান মোঃ ফজলুল করিমের উপস্থাপনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মেজর সয়ফুল কবীর চৌধুরী।  সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ আবুল হাসেম,সমাজসেবা অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মোঃ তুরন মিয়া,জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ গিয়াস উদ্দিন,কেয়ার বাংলাদেশের ম্যানেজার ডাঃ মোঃ জাহিদ হাসান,সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ আব্দুল হেকিম,সিভিল সার্জন অফিসের ডাঃ ওমর ফারুক,উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকতা ডাঃ মোঃ আব্দুল মোত্তালেব,সাংবাদিক লথিফুর রহমান রাজু  প্রমুখ। বক্তারা বলেন, গ্রামীণ জনপদের শূন্য থেকে ৩ বছর বয়সী বাচ্চা ও গর্ভবতী মহিলারা সচেতনতার অভাবে অপুষ্টিজনিত কারণে বিভিন্ন রোগভোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্রুবরণ করছেন। এ থেকে উত্তরনের জন্য এনজিও সংস্থার পাশাপাশি সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান।

 
 
 
 
 
 
 

এ,জে লাভলু, বড়লেখাঃ
মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে মেয়াদ উত্তির্ণ পন্য, ঔষধ এবং নষ্ট খাবার বিক্রির অপরাধে ১ টি ফার্মেসী, ১ টি রেস্টুরেন্ট এবং৫ টি দোকানে ৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা
করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মোহাম্মদ আমিনুর রহমান।  মঙ্গলবার  দুপুরে পৌর শহরের মাছ বাজারে মাছে ফরমালিনের উপস্থিতি নিশ্চিতের বিষয়ে সনাক্তকরন অভিযান পরিচালনা করা হয়। তবে মাছে
ফরমালিন পাওয়া যায়নি। পরে পৌর শহরে ভোক্তা অদিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর অধিন অভিযোগ দায়ের করে মেয়াদ উত্তির্ণ পন্য, ঔষধ বিক্রি এবং নষ্ট খাবার বিক্রির অপরাধে ১ টি ফার্মেসী, ১ টি রেস্টুরেন্ট এবং ৫ টি দোকানে জরিমানা
আদায় করা হয়।               

 
 
 
 
 
 
 

মুহাম্মদ আব্দুল বাছির সরদার, দিরাই উপজেলা সংবাদদাতা : বর্ষায় যেখানে থৈ থৈ পানি থাকে, হেমন্তে সেখানে শুকনো আবার কোথাও পুরোদস্তুর বোরো ধান চাষ হচ্ছে, এমন দৃশ্য এখন দিরাইয়ে সচরাচর দেখা যায়। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভাটি এলাকাখ্যাত সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলা হচ্ছে কৃষিপ্রধান এলাকা। এ এলাকায় এখন কোথাও এক ফসলী, আবার কোথাও দুই বা তিন ফসল ফলানো হয়। তবে এটিকে অনেকেই ইতিবাচক মনে করলেও সচেতন অনেক কৃষক জানান, এভাবে দীর্ঘদিন চলতে থাকলে এক সময় সকল খাল-বিল ও নদী ভরাট হয়ে পানি শূণ্য হলে কৃষিতে এর বিরূপ প্রভাব পড়বে। সরেজমিন উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে দেখা, বর্ষায় থৈ থৈ পানি থাকলেও হেমন্তে পানি শূণ্য বা কোথাও পানি কমে যাওয়ায় সেখানে কৃষকরা বোরো ধান চাষ করছেন। তবে কতটি খাল-বিল ও নদী এ সমস্যার সম্মুখিন কিংবা কী পরিমাণ জায়গা শুকিয়ে যায়, তার সঠিক পরিসংখ্যান স্থানীয় কৃষি অফিসে নেই। এ ব্যাপারে দিরাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মুহাম্মদ শফিকুর রহমান জানান, এ রকম জায়গা তেমন বেশি নেই, সর্বোচ্চ ২০ একর হতে পারে, তবে এর সঠিক পরিসংখ্যান আমাদের কাছে এই মুহূর্তে নেই।
               

 
 
 
 
 
 
 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্তের নদীপথ,শুল্ক ষ্টেশনের বাংলা কয়লা,মদ-গাঁজা,হেরুইন ও ইয়াবা পাচাঁর,হুন্ডি,জুয়ার বোর্ডে চলছে দুই সহোদরের জমজমাট চাঁদাবাজি বানিজ্য। তাদের চাঁদাবাজি ও অত্যাচারে সাংবাদিক সমাজসহ এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে উঠলেও প্রশাসন এব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেনা। ফলে দুই সহোদর তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে দাপটের সাথে তাদের অবৈধ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে হামলা চালানোসহ ফাঁসিয়ে দেয় মিথ্যা মামলা দিয়ে। কারণ এদের সাথে আবার প্রশাসনের খুব ভাব। দালালি থেকে শুরু করে প্রশাসনের লোকজনের মোটর সাইকেল চালানোসহ তাদের হাট-বাজারও করে দেয় তারা। ইতিমধ্যে দুই সহোদরের চাঁদাবাজি ও লুচ্ছামিসহ তাদের বিভিন্ন কর্মকান্ড নিয়ে বিভিন্ন জাতীয় ও আঞ্চলিক দৈনিক পত্রিকাসহ অনলাইন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। তারপরও প্রশাসন নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে। দুই সহোদর চাঁদাবাজরা হলেন-উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্দ গ্রামের বিশিষ্ট সুদি ব্যবসায়ী বদ মিয়ার ছেলে হাবিব সারোয়ার আজাদ মিয়া ও সাজ্জাদ মিয়া। স্থানীয়রা জানায়,আজাদ মিয়া ছিলেন একজন ভিডিও চালক। ব্লু ফিল্ম চালানো,মদ,গাঁজা ও হেরুইন সেবন করাসহ মেয়েদের রাস্তাঘাটে উত্যক্ত করা ছিল তার নিত্যদিনের অভ্যাস। এসব বিষয় নিয়ে অনেকবার গলায় জুতার মালা পড়ানোসহ এলাকাবাসীর গণধৌলাই খেয়েছে। তার এসকল কর্মকান্ডে এলাকাবাসীর নালিশ শুনতে শুনতে অতিষ্ট হয়ে আজাদ মিয়াকে তার বাবা তেজ্য করে দেয়। পরে সে এলাকা ছেড়ে সিলেট চলে যায়। দীর্ঘদিন পর আবার এলাকায় ফিরে এসে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে সীমান্ত এলাকায় তৈরি করে একটি চোরাচালান সিন্ডিকেট। রাতের আধাঁরে সীমান্তের লাকমা,লালঘাট,টেকেরেঘাট,চানপুর,চাঁরাগাঁওসহ আরো একাধিক পয়েন্ট দিয়ে প্রতিরাতে অবৈধভাবে হাজার,হাজার কয়লার বস্তা পাচাঁর করে। পাচাঁরকৃত কয়লার বস্তা থেকে বিজিবি ক্যাম্পের নামে ১০টাকা,তার নিজের নামে ৫টাকা হারে চাঁদা উত্তোলন করে আজাদ মিয়া। এরপর তার ছোট ভাই সাজ্জাদ মিয়া,শালা তারেক মিয়া,স্ত্রী মনোয়ারা বেগমসহ স্থানীয় প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকদের নাম ব্যবহার করে চাঁদার পরিমান বৃদ্ধি করে ১০টায়। এঘটনায় চানপুর সীমান্তে সে গণধৌলাইয়ের শিকার হয়। তাছাড়া পাহাড়ী ছড়া থেকে কুড়ানো বাংলা কয়লা থেকে প্রতিটনে ১শত টাকা,মদ-গাজা পাচাঁরের জন্য সপ্তাহে ২হাজার টাকা,চুরি করে ভারতে লোক উঠনোর জন্য জনপ্রতি ৩শত টাকা,যাদুকাটা নদী দিয়ে ভারত থেকে পাথর পাচাঁরের জন্য প্রতি বারকি নৌকা থেকে ১শত টাকা,এ নদীতে সেইভ মেশিন চালানোর জন্য ২শত টাকা,নদীর তীর কেটে বালু উত্তোলনের জন্য প্রতি নৌকা থেকে ১হাজার টাকা এবং এলাকার বিভিন্নস্থানে জুয়ার বোর্ড বসিয়ে প্রতিরাতে প্রতিবোর্ড থেকে ৫শত টাকা হারে আজাদ ও সাজ্জাদ চাঁদা উত্তোলন শুরু করে। এসব করে রাতারাতি হয়ে যায় আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ। এরপরও ক্ষান্ত হয়নি তারা। অবৈধ টাকাকে আরো দ্বিগুন থেকে দ্বিগুন করতে উপরের গডফাদারের নির্দেশে আজাদ ও সাজ্জাদ শুরু করে হুন্ডি,হেরুইন ও ইয়ারার ব্যবসা। যা যুব সমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। খোঁজ নিয়ে আরো জানাযায়,র‌্যাব ও বিডিআরদের দ্বারা ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে জনপ্রিয় সাবেক চেয়ারম্যান এমএ জাহের আলীর কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা চাঁদা হাতিয়ে নেয় আজাদ। তার দ্বারা তথ্য সন্ত্রাসের শিকার হয়ে হাজী এমএ জাহের আলী হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান। ২০০৭ সালের ৬ আগষ্ট স্থানীয় উত্তর বড়দল ইউনিয়নের গুটিলা গ্রামে প্রশাসনের লোকেরা স্থানীয় জনগণকে সঙ্গে নিয়ে ঘুষ গ্রহণের দায়ে তাহিরপুর থানার মামলা নং-৩,তারিখ:০৬.০৮.২০০৭ইং,ধারা-১৬২/১১৪ দঃবিঃ এর আসামী সেটেলম্যান্ট অফিসার মোহাম্মদ আলী হোসেনকে হাতে নাতে গ্রেফতার করলে,প্রশাসন ও উপস্থিত জনতার সামনে গ্রেফতারকৃত মোহাম্মদ আলী হোসেন বলেন,আজাদ প্রতিমাসে তার কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা হারে নিয়মিত চাঁদা নিত। এঘটনার পর আজাদ এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। চাঁদাবাজী,ব্ল্যাকমেইল ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অভিযোগে আজাদ মিয়া ও তার ভাই সাজ্জাদ মিয়ার বিরুদ্ধে তাহিরপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নির্বাচিত কমান্ডার মোহাম্মদ মুজাহিদ উদ্দিন আহম্মদ কর্তৃক গত ০৪/০৫/২০১১ইং জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। বড়ছড়া কয়লা আমদানী কারক সমিতির অর্থ সম্পাদক ব্যবসায়ী কুদ্দুছ মিয়া বাদী হয়ে আজাদ ও সাজ্জাদের বিরুদ্ধে বাংলদেশ দন্ড বিধি আইনের ৩৮৫/৫০০/ ৫০১/৫০২/১০৯ ধারায় বিজ্ঞ আদালতে ১১৫/২০১১নং পিটিশন মামলা দায়ের করা হয়। তাহিরপুর উপজেলার বালিজুরী হাজী এলাহি বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমানের কাছে ২০হাজার টাকা চাঁদা চাওয়ায়,স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও শিক্ষকবৃন্দ গত ১১ এপ্রিল ২০১২ইং তারিখে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে প্রতিবাদ জানান। বিভিন্ন স্থানে চাঁদাবাজির অভিযোগে গত ২৫/০৪/২০১১ইং ০৫.৯০৫...০৬.০৩.০৩১.২০১১নং স্মারকে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন কর্তৃক কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করেন। আজাদ ও সাজ্জাদের চাঁদাবাজি,ব্ল্যাকমেইল,দালালি ও মাদক বাণিজ্য নিয়ে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিক রাজু আহমেদ রমজানকে অফিসে ডেকে নিয়ে মারধর করে। এঘটনায় সাংবাদিক রাজু আহমেদ রমজান তাহিরপুর থানায় জিডি নং ৬৩১,তারিখ:২০/০৪/১১ইং দায়ের করলে,আজাদ ও সাজ্জাদ উল্টো সাংবাদিক রাজুর বিরুদ্ধে থানায় চাদাঁবাজি,চুরি,ছিনতাইর অভিযোগ দিয়ে মিথ্যা মামলা দেয়। পরে বিজ্ঞ আদালত জিআর ৫৪/১১মামলাটি খারিজ করে দেন। একই কারণে আজাদ ও সাজ্জাদ তাদের সহযোগী জিয়াউর রহমান জিয়া ও শহিদ মিয়া গংদের দ্বারা সীমান্ত সংলগ্ন লাকমা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে সংবাদ সংগ্রহ শেষে বাড়ি ফেরার পথে মোজাম্মেলের উপর হামলা করে। এঘটনায় মোজাম্মেল তাহিরপুর থানায় জিডি নং-৬৯১,তারিখ:২৫/১০/২০১১ইং দায়ের করেন। এঘটনার প্রেক্ষিতে গত ২০১৩সালের ৫মে রোববার বাদাঘাট বাজারে চোরাচালানিদের গডফাদার আজাদ ও সাজ্জাদ গং সাংবাদিক মোজাম্মেলের কাছে ৫০হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দিলে খুন করবে মর্মে হুমকিসহ সীমান্ত এলাকায় সংবাদ সংগ্রহের জন্য যেতে নিষেধ করে। পরদিন সোমবার সংবাদ সংগ্রহের কাজে বড়ছড়া শুল্কবন্দরের আমদানিকারক সমিতির সামনে সাংবাদিক মোজাম্মেলের উপস্থিতি টের পেয়ে তার উপর অর্তকিত হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে তারা ব্যাগে থাকা জেবিসি.জিআর. ডি.২৭০ মডেলের ১টি ডিবি ক্যামেরা,আধা ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন ও নগদ টাকা জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয় আজাদ ও সাজ্জাদ গংরা। এঘটনার প্রেক্ষিতে মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া বাদি হয়ে আজাদ ও সাজ্জাদসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে গত বছরের ১৩ই মে সুনামগঞ্জ আমলগ্রহণকারী জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তাহিরপুর জোনে দন্ডবিধি আইনের ৪২০/৩৮৫/৩৮০/৩২৫/৩২৪/৩০৭ ও ৩৪ ধারায় ৪৪/২০১৩নং পিটিশন মোকদ্দমাটি দায়ের করেন। মামলাটি অধ্যাবধি তদন্তাধীন রয়েছে। এছাড়া সম্প্রতি এক মোটর সাইকেল চালকের কাছ থেকে তার স্ত্রীকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টার ঘটনায় থানায় মামলা হলে আজাদ ও সাজ্জাদ সালিশে হাতে-পায়ে ধরে নাকে খত দিয়ে রক্ষা পায়। এছাড়া বলৎকারীর অভিযোগও রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। এব্যাপারে চাঁদাবাজ সাজ্জাদ মিয়া দাপটের সাথে বলেন,আমরা এত কিছু কিন্তু কেউ আমাদের কিছু করতে পারেনা। আর পত্রিকায় লিখলে কি হয়। কোন সাংবাদিক আমাদেরকে নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে মিথ্যা মামলা দিয়ে সাইজ করে ফেলব এটা কোন ব্যাপারই না। ইতিমধ্যে সাংবাদিক রাজু আহমেদকে চাঁদাবাজি ও মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়াকে এসিডের মামলা দিয়ে খবর করে দিয়েছি। আমার ও আমার বড়ভাই আজাদ মিয়া ক্ষমতা সম্পর্কে করো ধারণাই নাই। আমাদেরকে প্রশাসনও কিছু করতে পারবেনা। এদের কাছ থেকে সর্ব শ্রেণীর জনসাধারণকে করতে প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করেছেন তাহিরপুর উপজেলাবাসী।
               

 
 
 
 
 
 
 

এ.জে লাভলু, বড়লেখাঃ
এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকিতে এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। বাম্পার ফলন আর প্রকৃতি অনুকূলে থাকলেও শ্রমিকের অভাবে শতভাগ ধান কেটে গোলায় তোলা নিয়ে আশংকা প্রকাশ করছেন কৃষকরা।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এর আগে কয়েক বছর হাকালুকি হাওরপারের কৃষকরা টানা দু’বছর বন্যায় হাকালুকি হাওরপারের কৃষকরা হারিয়েছেন বোরো ধান। তারপরও দমে থাকেননি তারা। চলতি মৌসুমেও হাল

ছাড়েননি কৃষকরা। বরং আরও বেশি বোরো আবাদ করেন। তাই এবার প্রকৃতিও নিরাশ করেনি কৃষকদের। নিয়মিত বৃষ্টিপাত হওয়ায় এবার বোরোর বাম্পার ফলনও হয়েছে। চলতি মৌসুমে হাকালুকি হাওরপারের কুলাউড়া,
জুড়ী, বড়লেখা, ফেঞ্চুগঞ্জ এবং গোলাপগঞ্জ উপজেলায় ২৫ সহস্রাধিক হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ করা হয়, যা অতীতের সব বছরের তুলনায় বেশি। সরেজমিন হাওরপারের কুলাউড়া উপজেলার ধলিয়া বিল এবং জুড়ী উপজেলার চাতলা বিলে কৃষক
পাখি মিয়া (৫৩), শাহিদ মিয়া (৬০), রাজা মিয়া (৬০), ফয়েজ মিয়াসহ (৫২) অর্ধশতাধিক কৃষক জানান, বোরো ধানই হাওরপারের মানুষের একমাত্র ফসল। দুই বছর আগে বন্যা ও সিলেট জেলার ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় একটি বাঁধের কারণেইঅনেক বড়
ধরণের ক্ষতি হয়েছে। তাই সেই ক্ষতিকে পুষিয়ে নিতে এবার অন্য বছরের চেয়ে বেশি জমিতে বোরো আবাদ করা হয়। কৃষকরা আরও জানান, বিআর-২৮ জাতের ধান কাটা শুরু হয়েছে। এখন প্রায় সব জাতেরই ধান পাকতে শুরু করেছে। কিন্তু ধান
কাটা শ্রমিকের অভাব প্রকট আকার ধারণ করেছে। ধান কাটার জন্য একজন শ্রমিককে দিনপ্রতি দিতে হয় ৪০০ টাকা থেকে ৫৫০ টাকা। আর চুক্তিতে ধান কাটাতে গেলে একর প্রতি সাড়ে ৪ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা দাবি করেন শ্রমিকরা। ফলে ভারি বৃষ্টির আগেই ধান
নিরাপদে গোলায় তোলা নিয়ে আশংকা রয়েছে। তারা আরও জানান, ইতোমধ্যে এখানকার কৃষকরা ধান কাটা শুরু করেছেন। ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে তারা সুষ্ঠুভাবে ধান ঘরে তুলতে পারবেন যদি কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ পেয়ে না বসে। হাওরপারের
কুলাউড়া উপজেলা কৃষি অফিসের উপ- সহকারী কৃষি কর্মকর্তা বিমল চন্দ্র দে জানান, হাওরের কুলাউড়া অংশের এ বছর মোট ৫ হাজার ১২২ হেক্টর জমির মধ্যে চাষ হয়েছে ৪ হাজার ৮২৫ হেক্টর জমিতে। যেখান থেকে ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ
করা হয়েছে ২৪ হাজার ৭৩৭ মেট্টিক টন। গত বছরে চাষ হয়েছিল ৩ হাজার ৯৫০ হেক্টর এবং উৎপাদন হয়েছিল ১৬ হাজার ২৫০ মেট্টিক টন ধান। এবার বিগত বছরের চেয়ে ৮৭৫ হেক্টর বেশি জমিতে চাষাবাদ হয়েছে। তাই এবার ৮ হাজার ৪৮৭ মেট্টিক
টনের চেয়েও বেশি ধান উৎপাদন হবে বলে আমরা আশাবাদী।               

 
 
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ      
মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদিসহ জামায়াত নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবীতে কেন্দ্রিয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ছাতকে জামায়াতের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেলে মিছিল শহর প্রদক্ষিণ শেষে বাস ষ্ট্যান্ডে  প্রতিবাদ সভায় মিলিত হয়। ছাতক পৌর জামায়াতের আমীর রেজাউল করিম তালুকদারের সভাপতিত্বে ও সদর ইউনিয়ন সভাপতি লুৎফুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা জামায়াতের কর্মপরিষদ সদস্য ও ছাতক উপজেলা আমীর প্রিন্সিপাল মাওলানা মখছুছুর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ইসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান এড. সুফি আলম সোহেল, উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারী উপাধ্যক্ষ মাওলানা আকবর আলী। বক্তব্য রাখেন, জামায়াত নেতা ইঞ্জিনিয়ার নোমান আহমদ, হোসাইনুজ্জামান লিটন, হাবিবুল আহমদ জুলহাস, আমিরুল হক মেম্বার, শিবির নেতা আশরাফ উদ্দিন, আবু তাইদ, সুজাউল কবির শামীম, কামরুল হাসান সবুজ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, হত্যা, গুম ও নির্যাতনের মাধ্যমে আদর্শিক আন্দোলন দমিয়ে রাখা যায় না। মাওলানা সাঈদিসহ শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে প্রহসনমূলক মামলায় যদি কোন অবিচার করা হয়, তা হলে দেশপ্রেমিক তৌহিদী জনতা গণঅভ্যূত্থানের মাধ্যমে ফ্যাসিষ্ট আওয়ামী সরকারের কবর রচনা করবে।
               

 
 
 
জনমত জরিপ

সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ১৮ দলীয় জোটের বিজয় জাতীয় রাজনীতিতে কোনো প্রভাব ফেলবে কি?

 
হ্যাঁ না
 
 

ফলাফল দেখুন

 
 

রংপুর, ২৩ এপ্রিল :
সব অভিন্ন নদী বাঁচানোর দাবি জানিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বুধবার দুপুরে তিস্তা ব্যারেজের ডালিয়া পয়েন্টে সমাবেশে বক্তব্যকালে এ দাবি জানান তিনি।
  বন্ধত্ব সুদৃঢ় করতে ভারতের কাছে ১০ হাজার কিউসেক পানি দাবি করে ফখরুল বলেন, যদি পানি বৃদ্ধি না করা হয় তবে আরো কঠোর কর্মসূচির দিকে যাবে বিএনপি।
ফখরুল বলেন, ৩৬শ কিউসেক পানি পর্যাপ্ত নয়। বন্ধুত্ব ও ভালোবাসা তখনই সুদৃঢ় হবে যখন আমাদেরকে ১০হাজার কিউসেক পানি দেওয়া হবে। এবং তা আর বন্ধ করা হবে না।
বর্তমান সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন,  এ সরকার তিস্তা চুক্তি করতে পারবে না। কারণ তারা জনগণের সমর্থন নিয়ে ক্ষমতায় আসেনি। তাই তিস্তা চুক্তির ব্যাপারে তাদের কোনো অধিকার নেই।
ফখরুল আরো বলেন, দেশ হিসেবে আমরা ছোট হতে পারি। কিন্তু অধিকার আদায়ে আমরা ১৬ কোটি মানুষ যখন একত্রিত হয়ে আন্দোলন শুরু করবো, তখন কেউ আমাদেরকে আটকে রাখতে পারবে না।
তিনি আরো বলেন, এই নদীর পানির অভাবে এখানকার হাজার হাজার মানুষ আজ দুর্ভোগে দিন কাটাচ্ছে। তাই আজ এর প্রতিবাদে সব মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছে। তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা না দিলে আরো কঠোর আন্দোলনেরও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।
বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল হাবিব দুলুর সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাকর্মীরা।
   

 
 
 
 

সিলেট ২৩ এপ্রিল:
সিলেট নগরীর রিকাবীবাজারে দিনদুপুরে দুইটি দোকান লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। দোকান দুইটিতে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়ে সন্ত্রাসীরা কয়েক লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে গেছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। বুধবার সকাল ১১টার দিকে ২০-২৫ জনের একটি গ্রুপ রিকাবীবাজারের স্টেডিয়াম মার্কেটের ফ্যাশন অপটিকস ও মেডিহেলথ প্যাথলজি ল্যাবে এই হামলা ও লুট চালায়। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন হামলা ও লুটপাটের সাথে স্থাানীয় ছাত্রদলের একটি অংশ জড়িত। এ ব্যাপরে ছাত্রদলের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। নগদ টাকার সাথে ১৩ লাখ টাকা মূল্যের একটি ল্যাব মেশিনও লুট হয়েছে বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।  ভাঙচুর ও লুটপাটের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।               

 
 
 

 রংপুর, ২৩ এপ্রিল : নীলফামারীর ডালিয়ার তিস্তা ব্যারেজ এখন মিছিলে মিছিলে মুখরিত। বুধবার দুপুরে রংপুর থেকে লংমার্চ বহরটি তিস্তা ব্যারেজে পৌঁছালে স্থানীয় নেতাকর্মীরা বহরটিকে স্বাগত জানান। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তিস্তা ব্যারেজে জনসমাগম বাড়তে থাকে। উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা এবং ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা খ- খ- মিছিল নিয়ে সমাবেশে যোগ দিচ্ছেন। সমাবেশে এখন স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তব্য রাখছেন। ইতিমধ্যে বক্তব্য রাখেন- যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ। এর আগে সকাল পৌনে ১০টার দিকে রংপুর শহরের পাবলিক লাইব্রেরীর সামনে সংক্ষিপ্ত পথসভার মধ্য দিয়ে তিস্তা অভিমুখে লংমার্চ যাত্রার দ্বিতীয় দিন শুরু করে বিএনপি। রংপুর জেলা বিএনপির আয়োজনে সংক্ষিপ্ত এই পথসভায় যোগ দেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। প্রসঙ্গত, তিস্তা নদীর পানির ন্যায্য হিস্যার দাবিতে মঙ্গলবার সকালে রংপুরের তিস্তা ব্যারেজ অভিমুখে লংমার্চ শুরু করে বিএনপি। মঙ্গলবার সকালে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা আলমীগের নেতৃত্বে ঢাকার উত্তরা থেকে লংমার্চের যাত্রা শুরু করে একই দিন সকাল ১০টার দিকে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে টাঙ্গাইলে এবং দুপুর সোয়া ১২টার দিকে সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড়ে পথসভা করে দলটি। এরপর বিকালে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ ও পলাশবাড়ীতে পথসভা করে রাতে রংপুর শহরে অবস্থান নেয়।               

 
 
 

সিলেট, ২২ এপ্রিল
সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর আহবানে এবার সাড়া দিয়েছেন সিলেট সিটির ৬ নম্বর ওয়ার্ডের চৌকিদেখী এলাকার বাসিন্দারা। রাস্তা প্রশস্ত করার স্বার্থে এলাকাবাসী নিজেদের জায়গা ছেড়ে দিতে সম্মত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী চৌকিদেখীর ৩ নম্বর গলি পরিদর্শনে যান। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন নগর উন্নয়ন বিষয়ক স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান, স্থানীয় কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম, সিলেট সিটির প্রধান প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) নুর আজিজুর রহমান।
এসময় তারা চৌকিদেখীর ৩ নম্বর গলিটি সরু থাকার কারণে জনগনের দুর্ভোগের কথা এলাকাবাসীর সামনে তুলে ধরেন এবং রাস্তা প্রশস্থ করার স্বার্থে রাস্তার দুই পাশ থেকে প্রত্যেককে কয়েকফুট জায়গা ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ জানান। এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিকে এসময় সংশ্লিষ্টরা নিজেদের জমি রাস্তার প্রশস্ত করার স্বার্থে ছেড়ে দিতে রাজি হন। পরে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে নিজেই হাতে বড় হাতুড়ি তুলে নেন এবং বিভিন্ন স্থাপনা ভাঙার কাজে নিয়োজিত হন।
সিলেট সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে চৌকিদেখি ৩ নম্বর গলিটি বর্তমানে ৮-১০ ফুট প্রশস্ত। আরও কমপক্ষে ৫-৬ ফুট নতুন করে যুক্ত হলে রাস্তাটি অনেক প্রশস্ত হবে এবং এতে করে এলাকাবাসীই উপকৃত হবেন। রাস্তাটির দৈঘ্য ৪০০ মিটার এবং এর আগে এখানে ৭০ লাখ টাকার উন্নয়ন কাজ হয়েছে উল্লেখ করে সিলেট সিটির প্রকৌশল বিভাগ জানিয়েছে, বর্তমানে এখানে আরও ৫৫ লাখ টাকার উন্নয়ন কাজ পরিচালিত হবে। এদিকে রাস্তা প্রশস্ত করার সফল ্উদ্যোগ গ্রহন করায় সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এবং নগর উন্নয়ন কমিটির চেয়ারম্যান সিটি কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীমের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। তাদের এই সময় উপযোগী উদ্যোগটি সকলের কাছে অনুকরণীয় হয়ে থাকবে বলে এলাকাবাসী অভিমত ব্যক্ত করেন।
               

 
 
 

সিলেট, ২২ এপ্রিল
সিলেটের কোম্পানীগঞ্জের ভোলাগঞ্জ পাথর কোয়ারিতে যৌথ বাহিনীর অভিযান শেষে ফেরার পথে ইউএনও-ওসি গাড়ি বহরে হামলা চালিয়েছে পাথরখেকোরা ।  ইউএনও আসিফ বিন ইকরাম ও ওসি দেলোয়ার হোসেনসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। হামলাকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ১৪ রাউন্ড গুলি ছুঁড়েছে।  মঙ্গলবার সোয়া ২টার  দিকে এ ঘটনা ঘটে।
ওসি জানান, ভোলাগঞ্জ রোপওয়ের সংরক্ষিত এলাকায় সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। পাশাপাশি রোপওয়ে এলাকার বাইরে যত্র-তত্র খোঁড়াখুঁড়ির দায়ে মঙ্গলবার সকাল থেকে পরিবেশ অধিদপ্তরের নেতৃত্বে যৌথ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এতে কোম্পানীগঞ্জের ইউএনও আসিফ বিন ইকরাম, ওসি দেলোয়ার হোসেন ও পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান অংশ নেন। তারা কোয়ারি এলাকায় পরিবেশ ধ্বংস করে পাথর উত্তোলনের জ্য প্রায় ৩৫টি বোমা মেশিন(পাথর উত্তোলনের জন্য এক ধরণের ইঞ্জিন চালিত যন্ত্র) ধ্বংস করেন। অভিযানশেষে ফেরার পথে বেলা সোয়া ২টার দিকে টুকেরবাজার সংলগ্ন বউবাজার এলাকায় কয়েকশ’ লোক সড়ক অবরোধের সৃষ্টি করে। তারা কোয়ারিতে অভিযানের প্রতিবাদে ইউএনও-ওসির গাড়ি বহরে হামলা চালায়। এতে তাদের গাড়ি দুটি সামান্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ সময় পুলিশ গুলি ছোঁড়লে তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে।
           

 
 
 

সিলেট, ২২ এপ্রিল :
জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী ও বিশ্ব বরেণ্য মুফাস্সিরে কোরআন জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে মিথ্যা  ভিত্তিহীন মামলায় অবিলম্বে বেকসুর খালাস দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন সিলেটের বিশিষ্ট ১০১ জন আইনজীবী।
মঙ্গলবার এক যৌথ স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে আইনজীবীরা বলেন, মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী একজন সাবেক সফল মন্ত্রী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলেও কোন দুর্নীতি খোঁজে পাওয়া যায়নি। তিনি একজন বিশিষ্ট আলেম। এছাড়া আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী একজন বিশ্ব বরেণ্য আলেমে দ্বীন ও মহাগ্রন্থ আল কোরআনের খাদেম। দেশে বিদেশে তিনি কোরআনের তাফসির পেশ করে পথহারা মানুষকে আলোর  সন্ধান দিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে আনীত মিথ্যা বানোয়াট ও কাল্পনিক অভিযোগ আদালতে সুস্পষ্ট মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ার পরও রহস্যজনক কারণে এই কোরআনের খাদেমকে মুক্তি দেয়া হচ্ছে না। বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত তথ্যে যে দুটি মামলায় আল্লামা সাঈদীকে ট্রাইব্যুনালে ফাঁসির আদেশ দেয়া হয় তা বেকসুর খালাস যোগ্য। কিন্তু রহস্যজনক কারণে তাকে মুক্তি না দিয়ে সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়ার জন্য সরকার এগুচ্ছে। যদি  মাওলানা নিজামী  ও আল্লামা সাঈদীকে অন্যায়ভাবে কোন শাস্তি দেয়া হয় তাহলে এর দায়-দায়িত্ব  সরকারকেই নিতে হবে। তারা হুশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, আল্লামা সাঈদীর সাথে এ দেশের কোটি জনতার আত্মার সম্পর্ক রয়েছে। তাকে শাস্তি দিলে তৌহিদী জনতা ঘরে বসে থাকবে না। অতীতের ন্যায় আবারও কোটি জনতা গর্জে উঠবে। সরকারের সকল ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের বিরুদ্ধে দেশবাসীকে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানিয়ে সিলেটের বিশিষ্ট প্রকৌশলীরা বলেন, মাওলানা নিজামী ও আল্লার সাঈদীর বিরুদ্ধে সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে দেশবাসীকে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানান।
বিবৃতি দাতারা হলেন-এডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, এডভোকেট তৌহিদুল ইসলাম, এডভোকেট সেলিমুর রহমান, এডভোকেট কামরুজ্জামান, এডভোকেট নুরুল আলম খান, এডভোকেট সেলিম মো: আলী আসগর, এডভোকেট সোয়েব আহমদ চৌধুরী, এডভোকেট আনোয়ার হোসেন, এডভোকেট আব্দুর রহীম, এডভোকেট ইব্রাহীম আহমদ, এডভোকেট বদরুল ইসলাম, এডভোকেট আমীনুল হক, এডভোকেট দেলোয়ার হোসেন, এডভোকেট মাহবুবুর রহমান, এডভোকেট সাইফুল ইসলাম, এডভোকেট মতলিব আলী, এডভোকেট জামিল আহমদ রাজু, এডভোকেট মখছিন  প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি
               

 
 
 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় ট্রাক চাপায় সাদিয়া আক্তার (৮) নামে এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় সুনামগঞ্জ-জগন্নাথপুর সড়কের মমিনপুর নামক স্থানে এ দূঘটনাটি ঘটে। সাদিয়া আক্তার উপজেলার মমিনপুর গ্রামের আব্দুর রউফের কন্যা। স্থানীয়রা,জগন্নাথপুর থেকে ছেড়ে আসা একটি ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-অ-১১-২৭৩৩) সুনামগঞ্জের উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে মমিনপুর এলাকায় ওই শিশুটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এঘটনার পর ঘাতক চালক পালিয়ে গেলেও ট্রাকটি আটক করে স্থানীয় জনতা। জগন্নাথপুর থানার ওসি আসাদুজ্জামান এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
               

 
 
 

গাইবান্ধা : লংমার্চ কর্মসূচি সফল হয়েছে মন্তব্য করে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বিশ্বাসযোগ্য সূত্রে জানতে পারলাম লংমার্চের কারণে ভারত তিস্তায় কিছুটা পানি ছেড়েছে। এটা লংমার্চের প্রাথমিক সাফল্য। আমরা সাময়িক নয়, পুরোপুরি সফলতা চাই। মঙ্গলবার বিকেলে গাইবান্ধা গোবিন্দগঞ্জ লংমার্চের পথ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, এই সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার নয়। যার জন্য তারা তিস্তাসহ অভিন্ন সব নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা আনতে পারবে না। তাই অবিলম্বে নির্দলীয় সরকারের অধীনে সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সে সরকার আমাদের পানির অধিকার ফিরিয়ে আনতে পারবে।
পুলিশ প্রশাসনের উদ্দেশ্য ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এই সরকার চিরদিন ক্ষমতায় থাকবে না। বিএনপি অতীতেও ক্ষমতায় ছিল ভবিষ্যতেও ক্ষমতায় আসবে। তাই আওয়ামী লীগের নেতাদের কথায় বিরোধী দলের উপর নির্যাতন করবেন না। সব কিছুর জবাব সময় মতো দেওয়া হবে।
               

 
 
 

নীলফামারী: আকস্মিকভাবে বেড়ে চলেছে তিস্তা নদীতে পানি প্রবাহের পরিমাণ। মাত্র ৫ দিনেই এ নদীর পানির পরিমাণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০০০ কিউিসেকে। পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ নদীতে পানি বৃদ্ধির সঠিক কারণ জানাতে না পারলেও অভিজ্ঞজনেরা বলছেন, দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপির লংমার্চের কারণে এবং গত বেশ কিছুদিন ধরে রাজনৈতিক দলগুলোর পানির দাবিতে অব্যাহত লংমার্চ কর্মসূচিকে আইওয়াশ করতেই ভারত কিছুটা হলেও নদীর পানির প্রবাহের প্রতিবন্ধকতা সরিয়ে নিয়েছে। তিস্তা নদীতে প্রাণের সঞ্চার হচ্ছে দবি করা হলেও এ পানির প্রবাহ কতদিন স্থায়ী হবে তা নিয়ে শঙ্কায় খোদ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ।
গত দুই মাস ধরেই তিস্তা নদীতে পানি প্রবাহের পরিমান ছিল ১০০ কিউসেক থেকে ১৫০ কিউসেক। কিন্তু হঠাৎ করে গত শুক্রবার (১৮ এপ্রিল) তিস্তা নদীতে পানির পরিমাণ বেড়ে দাঁড়ায় ৫০০ কিউসেকে। এরপর গতকাল সোমবার (২১ এপ্রিল) পানির পরিমাণ বেড়ে দাঁড়ায় ৮০০ কিউসেকে।
আর আজ মঙ্গলবার নদীর পানি এতটাই বেড়েছে যে, যা এখন তিস্তা নদীতে পানির পরিমান ৩০০০ কিউসেকে দাঁড়িয়েছে।
তিস্তা নদীতে পানি প্রবাহের পরিমাণ বাড়ার কথা স্বীকার করে ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবার রহমান বলেন, দুপুর ১২টায় তিস্তা নদীতে পানির প্রবাহ ছিল ৩০০০ কিউসেক। পানি প্রবাহের পরিমাণ হঠাৎ করে কেন বাড়লো এর সঠিক কারণ জানাতে না পারলেও তিনি জানান, আগামীকাল বুধবার দুপুর ১২টায় পানির পরিমাণ মাপলেই বোঝা যাবে পানি প্রবাহের পরিমাণ কমেছে না বেড়েছে।

 
 
 

সিলেট, ২২ এপ্রিল :
অনিয়মিত ঔষধ সেবন, নিয়মিত চিকিৎসা কার্যক্রম ব্যাহত হওয়ার ফলে ভয়াবহ আকার ধারনকারী যক্ষা রোগীদেরকে বিশেষ ব্যবস্থায় আন্তর্জাতিক মানের চিকিৎসা প্রদানের কার্যক্রম সিলেটে শুরু হয়েছে। জাতীয় যক্ষা নিয়ন্ত্রন কর্মসূচীর আওতায় টি.বি. কেয়ার-২ এর সার্বিক সহযোগিতায় সিলেট বক্ষব্যধি হাসপাতালে ঔষধ প্রতিরোধী (এমডিআরটিবি) যক্ষা রোগীর ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ফলে এখন যক্ষা রোগে ভয়াবহভাবে আক্রান্ত রোগীদেরকে চিকিৎসার জন্যে ঢাকা যেতে হবে না।  সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক ডাঃ বনদীপ লাল দাস  মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে এ ভর্তি কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এসময় বক্তব্যকালে ডাঃ বনদীপ লাল দাস বলেন, একসময় যক্ষা সম্পর্কে মানুষের ধারণা ছিলো যার হয় যক্ষা তার নাই রক্ষাÑমানুষের এ ধারণা এখন পাল্টে গেছে। নিয়মিত ও পূর্ন মেয়াদে ঔষধ খেলে যক্ষা রোগ সম্পূর্ন ভালো হয়। এর পরও অনিয়মিত ঔষধ সেবন ও নিয়মিত চিকিৎসা গ্রহণ না করায় সেইসব রোগী মাল্টি ড্রাগ রেসিসটেন্ট বা ঔষধ প্রতিরোধী (এমডিআরটিবি) যক্ষা রোগীতে পরিণত হয়। সাধারণ যক্ষা চিকিৎসায় তারা ভালো হবেনা। এইসব রোগীদের বিশেষ চিকিৎসা প্রদানের জন্য সিলেট বিভাগে (এমডিআরটিবি) যক্ষা রোগী চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এইসব রোগীর চিকিৎসা চালাতে হয় কমপক্ষে দুই বছর এবং ঔষধের দামও খুব বেশি। সিলেটে এই চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করায় ভয়াবহ আক্রান্ত যক্ষা রোগীদের সামনে বেচে থাকার এক নতুন আশার আলোর সুচনা হলো।  এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিলেটের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আজহারুল ইসলাম, ডি.পি.এম (ফাইন্যান্স) ও ফোকাল পার্সন এমডিআর টিবি ডাঃ মোঃ মীর্জা নিজাম উদ্দিন, টি.বি. কেয়ার-২ প্রজেক্টের টিম লিডার ডাঃ পৌলদারু, ডব্লুএইচও প্রতিনিধি ডাঃ সাবেরা সুলতানা, এনটিপি ডাঃ কাউসারী জাহান, সিডিসি সিলেটের জুনিয়র কনসালটেন্ট ডাঃ মোঃ শাহ আলম,  সিলেট বক্ষব্যধি হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ সৌমিত্র চক্রবর্তী, এনটিপির ডিভিশনাল কনসালটেন্ট ডাঃ মোঃ শাহীদ আনোয়ার, টি.বি. কেয়ার-২ প্রজেক্টের কর্মকর্তা ডাঃ মঞ্জুরুল আলম, টি.বি. কেয়ার-২ প্রজেক্টের রিজিওনাল কো-অর্ডিনেটর সত্যজিৎ নাহাসহ সিলেট বক্ষব্যধি হাসপাতালের অন্যান্য ডাক্তার ও নার্সবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 
হাসপাতালে ঔষধ প্রতিরোধী (এমআরটিবি) যক্ষা রোগের চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করার পূর্বে সিলেট বক্ষব্যধি হাসপাতালের  ডাক্তার এবং নার্সদের নিয়ে ৩দিন ব্যাপী এক ট্রেনিং প্রোগ্রাম সম্পন্ন হয়। উল্লেখ্য, বর্তমানে বাংলাদেশে ঔষধ প্রতিরোধী যক্ষা একটি মারাত্মক সমস্যা। পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে নতুন যক্ষা রোগীদের মধ্যে ১.৪% এবং পুরাতন রোগীদের মধ্যে ২৮.৫% ঔষধ প্রতিরোধী যক্ষায় আক্রান্ত।

               

 
 
 

সিলেট, ২২ এপ্রিল :
সাংবাদিক মুহাম্মদ তাজ উদ্দিনের ওপর হামলাকারী সন্ত্রাসীরা এখনো গ্রেফতার না হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সিলেটের সিনিয়র সাংবাদিকবৃন্দ। মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট প্রেসক্লাবে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তারা এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন। সাংবাদিক মুহাম্মদ তাজ উদ্দিনের ওপর হামলার বিষয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে  এ মতবিনিময়ের আয়োজন করে সিলেট প্রেসক্লাব। এতে সভাপতিত্ব করেন ক্লাব সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী।  সভায় তাজ উদ্দিনের ওপর হামলার প্রতিবাদে ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসাবে আগামী শনিবার সকাল ১১টায় শহীদ মিনার থেকে মিছিল বের করার সিদ্ধান্ত হয়। মিছিলশেষে মধুবন মার্কেটের সম্মুখে সমাবেশ আয়োজনের ব্যাপারেও আলোচনা হয়।   মতবিনিময়ে অংশ নেন সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক কালের কণ্ঠের ব্যুরো প্রধান আহমেদ নূর, সিলেট প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও দৈনিক  জালালাবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আজিজুল হক মানিক,  দৈনিক সিলেট সংলাপের সম্পাদক মুহাম্মদ ফয়জুর রহমান, সিনিয়র সাংবাদিক ও বাংলা টিভি’র সিলেট প্রতিনিধি আব্দুল মালিক জাকা, দৈনিক নয়া দিগন্তের ব্যুরো প্রধান এনামুল হক জুবের, দৈনিক কাজিরবাজারের নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ সুজাত আলী, দৈনিক ইত্তেফাকের স্টাফ রিপোর্টার হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী, দৈনিক সিলেটের ডাক-এর ব্যবস্থাপনা সম্পাদক দেওয়ান তৌফিক মজিদ  লায়েক, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক সিলেটের ডাক-এর বার্তা সম্পাদক সমরেন্দ্র বিশ্বাস সমর, ওকাস সভাপতি খালেদ আহমদ, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম ও সহ-সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ, দৈনিক যুগান্তরের স্টাফ রিপোর্টার আব্দুর রশীদ রেনু,  সিলেট সুরমার নির্বাহী সম্পাদক এমদাদ হোসেন চৌধুরী দীপু, দৈনিক সংগ্রামের ব্যুরো প্রধান কবির আহমদ, ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সিলেট বিভাগীয় সভাপতি শেখ আশরাফুল আলম নাসির, সিলেট প্রেসক্লাবের ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সম্পাদক আহবাব মোস্তফা খান, প্রেসক্লাবের নির্বাহী সদস্য মো. মুহিবুর রহমান।
সভায় উদ্ভূত পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হয় এবং হামলাকারী সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের জন্য আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়। সভায় হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে স্থগিত হওয়া মিছিল-সমাবেশের কর্মসূচি আগামী শনিবার পালনের সিদ্ধান্ত হয়।

               

 
 
 
 
 
কবিতা
শিল্প-সাহিত্
মিডিয়া
ইসলাম
Image Missing
 
 
বিনোদন
বিনোদন
বিচিত্রা
বিচিত্রা
মুক্তমঞ্চ
Image Missing
 
 
খেলাধুলা
খেলাধুলা
স্বাস্থ্য
স্বাস্থ্য
তথ্য-প্রযুক্তি
তথ্য-প্রযুক্তি
 
 
সংবাদদাতা
জীবন সদস্য
সম্পাদক
 
দেশ বিদেশ
 
 
 

ঢাকা, ২৩ এপ্রিল  :
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বলেছেন, তিস্তা অভিমুখে লংমার্চ বিএনপির নাটক। দেশের মানুষ এ নাটক বুঝতে পেরেছে। তিনি বলেন, হতাশাগ্রস্ত নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করতেই বিএনপির এই লংমার্চ। বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের উদ্যোগে ‘ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস ও প্রাসঙ্গিক ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
   হানিফ বলেন, ভারতের নির্বাচন শেষ হওয়ার পর তিস্তার পানির সমস্যার সমাধান হবে। ভারতের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক পরিবেশ ঘোলাটে থাকার কারণে গত আমলে তিস্তার বিষয়টি সমাধান হয়নি।
হানিফ বলেন, গত ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে না গিয়ে বিএনপি এখন দেউলিয়া ও হতাশাগ্রস্তদের দলে পরিণত হয়েছে। তাই নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করতেই এই লংমার্চ।
সংগঠনের আহ্বায়ক ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরী আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন।
               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২৩ এপ্রিল:
রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানার প্রচুর অবৈধ সম্পদের প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সচিব মো. ফয়জুর রহমান চৌধুরী। রানার অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে বলেও জানান দুদক সচিব।
বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে  দুদক সচিব এসব কথা জানান।
ফয়জুর রহমান চৌধুরী জানান, একই সঙ্গে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) পক্ষ থেকে রানা প্লাজা ধসের কারণ এবং সোহেল রানার অন্যান্য অনিয়মের বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
দুদক সচিব বলেন, রানা প্লাজা ধসের এক বছর হয়ে গেছে। তাই দ্রুত ওই প্রতিবেদন শেষ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। দুদকের দুজন উপপরিচালক বিষয়টি তদন্ত করছেন। অনুসন্ধানের এ পর্যায়ে সোহেল রানার বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদের অনেক প্রমাণ পাওয়া গেছে।
দুদক সচিব জানান, ২০১৪ সালে জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত গত তিন মাসে ৭৬টি মামলার অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। একই সঙ্গে ১১৭টি চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল ও ১২৩টি চার্জশিটও অনুমোদন করেছে দুদক।
তিনি বলেন, গত তিন মাসে দুদকে ২১৭০টি অভিযোগ জমা পড়ে কমিশন। কমিশনের তফসিলভুক্ত না হওয়ায় ১৭৬৪টি আভিযোগ বাদ পড়ে এবং যাচাই বাছাই শেষে ৩৩৭ টি অভিযোগ অনুসন্ধানের জন্য গৃহীত হয়।
তিনি বলেন, ৩৩৭টি মধ্যে যাচাই বাছাই শেষে অনুসন্ধানের জন্য গৃহীত প্রতিবেদনের সংখ্যা ৪২টি বলে তিনি জানান। এর মধ্যে গত তিন মাসে মামলা নিষ্পত্তি সংখ্যা ২৩টি সাজা হয়েছে ৬টি এবং খালাস সংখ্যা ১৭টি।                               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা: দেশের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে দলের উপজেলা আমিরসহ জামায়াত-শিবিরের ৩৮ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত সময়ের মধ্যে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

আমাদের যশোর প্রতিনিধির পাঠানো খবরে জানা যায়, যশোর সদর ও মণিরামপুর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে অভিযান চালিয়ে পুলিশ  জামায়াত-শিবিরের ১৯ জন নেতাকর্মীকে আটক করে। মঙ্গলবার ভোরে তাদের আটক করা হয়। এর মধ্যে সদর উপজেলায় দুজন ও মণিরামপুর থেকে ১৭ জনকে আটক করা হয়।
 
আটক নেতাকর্মীরা হলেন, মণিরামপুর উপজেলার কাশিপুর গ্রামের তুহিন, গোয়ালপাড়া গ্রামের মনিরুল, আব্বাস গাজী, আবদুল কাদের, জয়পুর গ্রামের মতিয়ার রহমান, হাফিজুর, গোলাম রসুল, হাফিজুর রহমান, মঞ্জুরুল আলম ও ইউনুস আলী, চালকিডাঙ্গা গ্রামের আজিজুর রহমান ও সিরাজুল ইসলাম, মোহাম্মদপুর গ্রামের আলমগীর হোসেন ও রুস্তম আলী, আন্দুলিয়া গ্রামের আব্দুবদুল মজিদ, হাজরাইল গ্রামের আজিজুর রহমান ও জালাল উদ্দিন।
 
এ ছাড়া পুলিশের গুলিতে যশোরে মুছাইদ হুসাইন (২৮) নামে এক জামায়াত নেতা আহত হয়েছেন। যশোর সদর উপজেলার বাউলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গুলিসহ দুই শিবিরকর্মীকে আটক করা হয়।

নাটোর: নিজামী-সাঈদীসহ আটক জামায়াত নেতাদের মুক্তির দাবিতে সোমবার বের করা মিছিলকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় করা মামলায় নাটোর জেলা ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারি আবু তালেব, হরিশপুর ইউনিয়নের তিন নম্বর ওর্য়াড জামায়াতের সভাপতি শাহ আলম, গুনারিগ্রাম মসজিদের ইমামের তিন ছেলে জামায়াত কর্মী মোহায়মেনুল, মুক্তাদির ও মুহিদ, জামায়াত-শিবিরের কর্মী উমর আলী বিশ্বাস, রফিকুল ইসলাম, বুলেট, সারোয়ার ও আলীকে আটক করে।

এদের মধ্যে সাতজনকে সোমবার রাতে করা হয়।

বগুড়া: বগুড়ায় জামায়াত-শিবিরের সাতজন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার পরিচালিত অভিযানে শেরপুর উপজেলা জামায়াতের নায়েবে আমির আলতাফ হোসেন, উপজেলা জামায়াতের রাজনৈতিক সেক্রেটারি রেজাউল করিম বাবলু, শাহবন্দেগী ইউনিয়ন জামায়াতের সেক্রেটারি ডা. এনামুল হক এবং শিবিরকর্মী শহিদুল ইসলাম, শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের দুপচাঁচিয়া উপজেলা সেক্রেটারি নাছির উদ্দিন এবং ইসলামী ছাত্রশিবির নন্দীগ্রাম পৌর শাখার সেক্রেটারি রাকিব হাসান ও শিবির নেতা আতিকুর রহমানকে গ্রেফতার করে।

পটুয়াখালী: পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা জামায়াতের আমির মাওলানা এছাহাক মিয়াকে (৫২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নিজ কর্মস্থল বাউফল সালেহিয়া ফাজিল মাদরাসা থেকে  তাকে গ্রেফতার করা হয়।
               

 
 
 
 
 
 

ময়মনসিংহ, ২২ এপ্রিল: ইসলামী ব্যাংক ময়মনসিংহ শাখার পল্লী উন্নয়ন প্রকল্পের (আরডিএস) সহকারী কর্মকর্তা অপহৃত ইলিয়াস উদ্দিনের (৩৮)’র সন্ধান পায়নি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।
কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি ফজলুল করিম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পুলিশ তার কোনো সন্ধান পায়নি। প্রসঙ্গত, সোমবার রাত ১০টার দিকে জেলা শহরের গোলপুকুরপাড় এলাকা থেকে তাকে কালো রঙের একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ কোতোয়ালি মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছে।
অপহৃত ইলিয়াস উদ্দিন ভালুকা উপজেলার মরচি গ্রামের আব্দুল হেকিমের ছেলে। তার চার বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।
               

 
 
 
 
 
 

বগুড়া, ২২ এপ্রিল  :
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, পাশের দেশের আগ্রাসনের কারণে আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব আজ হুমকির মুখে। তিস্তা নদীর অববাহিকায় পাশের দেশের বাঁধ নির্মাণের ফলে উত্তরাঞ্চলের ৮টি জেলার প্রায় ৩ কোটি লোকের জীবন-জীবিকা আজ সংকটাপন্ন। মঙ্গলবার বিকাল সোয়া চারটায় বগুড়ার মাটিডালি এলাকায় লংমার্চের ৪র্থ পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন।
 মির্জা আলমগীর বলেন, এ নতজানু সরকারের পক্ষে জনগণের সমস্যার সমাধান সম্ভন নয়। কারণ, তারা জনগণের সরকার নয়- জনগণ তাদের ক্ষমতায় আনেনি। তারা অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে রেখেছে। তাই সব সমস্যার একমাত্র সমাধান জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করা। এজন্য সবাইকে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।
তিনি বলেন, আমরা তিস্তাসহ ৫৪টি আন্তর্জাতিক নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা চাই। এসব নদীর পানি প্রাপ্তি কারো দয়া নয়, আমাদের অধিকার। ভারত অবৈধভাকে আমাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে।
তিনি বলেন, বগুড়া জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসীদের পূন্যভূমি। কারণ এই ভূমিতেই জন্মেছিলেন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান। তাই আপনাদের কাছে দাবি নিয়ে এসেছি- দেশ বাঁচাতে হবে, মানুষ বাঁচাতে হবে।
মির্জা আলমগীর বলেন, এ সরকারকে দাবি জানিয়ে কোনো লাভ নেই। কারণ এরা আমাদের ন্যায্য অধিকার আদায় করতে পারবে না। এরা ভারতে তাবেদার সরকার। তাই কোনো দাবি নয়, রাজপথে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এ সরকারের পতন ঘটিয়ে জনগণের অধিকার আদায় করতে হবে।
বগুড়া জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদিন চাঁনের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপিার ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খাইরুল কবির খোকন, শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি,  যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মহিলা দলের সভানেত্রী নুরে আরা সাফা, সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন আলম, সহ-দপ্তর সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বজলুর রশিদ আবেদসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২২ এপ্রিল:
ভারতের সঙ্গে তিস্তা চুক্তি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, “ভারতে এখন নির্বাচন হচ্ছে। আমরা আশা করছি সেখানে নতুন সরকার ক্ষমতায় এলে তাদের সঙ্গে আলোচনা করে অদূর ভাবিষ্যতে তিস্তা সমস্যার সমাধান হবে।” মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর ধানমণ্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের এক বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
নাসিম বলেন, “১৪ দল মনে করে, তিস্তার পানির ন্যায্য অধিবার আমাদের রয়েছে। এটা দ্বি-পাক্ষিক আলোচনা মাধ্যমে সমাধান হওয়া উচিত। ভারত আমাদের বন্ধুপ্রতিম প্রতিবেশী রাষ্ট্র। আমরা আশা করি খুব শিগগিরই তারা এই সমস্যার সমাধান করবে।”
তিনি বলেন, “তিস্তা নিয়ে আমাদের অবেকবার ভারতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা হয়েছে। আমরা এটা নিয়ে অনেক দূর এগিয়েছিলাম। কিন্তু ভারতের একটা রাজ্যের মূখ্যমন্ত্রীর বিরোধিতায় এই চুক্ত বাস্তবায়ন করা হয়নি। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নিজেও এই বিষয়টা নিয়ে বিব্রত বোধ করেছেন।”
তিস্তা অভিমুখে বিএনপির লংমার্চ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, “বিএনপির নেতৃত্বে লংমার্চের নামে গাড়ি মার্চ শুরু হয়েছে। তারা ক্ষমতায় থাকতে তিস্তা নিয়ে কোনো কাজ করেনি। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার, শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় থাকতে তিস্তা নিয়ে চুক্তি বাস্তবায়নে কাজ করেছে। অতীতে আমরাই গঙ্গা চুক্তি করেছিলাম।”
তিনি অভিযোগ করে বলেন, “বিএনপির লংমার্চের উদ্দেশ হলো, তারা ৫ জানুয়ারির নির্বাচন বানচাল করতে না পেরে তাদের দলের নেতা-কর্মীরা হতাশ। তাই তারা এখন নেতা-কর্মীদের চাঙ্গা করতে তিস্তাকে ইস্যু বানিয়েছে।”
বিএনপি শান্তিপূর্ণভাবে লংমার্চ কর্মসূচি পালন করলে সরকার তাদের কোনা ধরনের বাধা দেবে না বলেও জানান এই মন্ত্রী               

 
 
 
 
 
 

সৌদি আরব প্রতিনিধি
রিয়াদ: “বাংলাদেশ আজকে যতটা এগিয়েছে তা প্রবাসীদের কারণে। প্রবাসীদের শ্রমের ফসল আজকে রেমিটেন্সের ভাণ্ডার পূর্ণ হয়। আপনাদের টাকায় সরকার উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে পারে, এ অবদান প্রবাসীদের। অথচ প্রবাসীরা দেশে বিনিয়োগ করতে গেলে গ্যাস পায় না, বিদ্যুৎ পায় না, টেলিফোন লাইন পায় না, আমলাদের পিছনে পিছনে দৌড়াতে দৌড়াতে জুতা ক্ষয় হয়ে যায়।”

শনিবার সন্ধ্যায় রিয়াদের নুরমাচ কমিউনিটি সেন্টারে সৌদি আরবে বাংলাদেশী পণ্য আমদানি কারক সমিতি (এনআরবি) রিয়াদ শাখার উদ্যোগে নববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পিরোজপুর ৩ (মঠবাড়ীয়া) সতন্ত্র সংসদ সদস্য ডাক্তার রুস্তম আলী ফরাজী একথা বলেন।

রুস্তম আলী ফরাজী বলেন, “প্রবাসীদের মধ্য থেকে দশজনকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত করার ব্যবস্থা করা যেতে পারে। সৌদি আরব থেকে দুইজন ইউরোপ থেকে চারজন সংসদ সদস্য নিলে প্রবাসীরা সংসদে দাঁড়িয়ে তাদের দুঃখের কথা বলতে পারবে।”

বাংলাদেশের রন্দ্রে রন্দ্রে দুর্নীতি রয়েছে দাবি করে স্বতন্ত্র এই সংসদ সদস্য বলেন, “দেশের ৯৮ ভাগ মানুষ দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত। এমপি মন্ত্রী কিংবা তাদের সন্তানদের জন্য যেন কোনো আইন নেই, তা শুধু গরীব-খেটে খাওয়া মানুষের জন্য। ক্ষমতাবানরা আইনের ধার ধারে না। বিদেশীদের সম্মাননা দেয়ার ক্রেস্ট তৈরিতেও দুর্নীতি করে দেশের সম্মানকে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিয়েছে।”

বর্তমান রাজনীতির সমালোচনা করে রুস্তম ফরাজী  বলেন, “বাংলাদেশের রাজনীতি বিভাজন, হিংসা-বিদ্বেষ আর তোষামোদের রাজনীতি। আমাদের দেশের রাজনীতিবিদরা একটেবিলে বসতে পারে না, জাতীয় স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ হতে পারে না। বাংলাদেশের রাজনীতিতে যে হীনমন্যতা তা পৃথিবীর অন্যকোনো দেশের রাজনীতিবিদদের মধ্যে নেই। রাজনীতিবিদরা এমপি মন্ত্রী নির্বাচিত হলে তাদের স্ত্রী সন্তানেরা বিদেশের ব্যাংকে দুর্নীতির টাকা জমা করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন, এ রাজনীতি দিয়ে মূলত জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়। ”

ছয়বার নির্বাচিত রুস্তম আলী ফরাজী বলেন, “অত্যান্ত পরিতাপের বিষয় এখনো আমাদের দেশে দক্ষ আমলা গড়ে ওঠেনি। দেশে আইন আছে আইনের প্রয়োগ নেই, আইনের শাসন নেই,ন্যায় বিচার নেই।”

সমিতির সভাপতি ব্যবসায়ী কাপ্তান হোসেন এর সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের সদস্য হানিফ মুন্সির পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিমান বাংলাদেশের সৌদি আরবের কান্ট্রি ম্যানেজার হেলাল উদ্দিন, রিয়াদ স্টেশন ম্যানেজার ইস্রাফিল আলম, বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল রিয়াদের সাবেক চেয়ারম্যান ফিরোজ হোসেন খান, বিশিষ্ট কবি সাহিত্যিক শাহজাহান চঞ্চল, প্রবাসী সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আবুল বশির, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মনির হোসেন, রাইসুজ্জামান, রফিকুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, শাহীন আহমেদ, বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল রিয়াদ বাংলা শাখার চেয়ারম্যান ডাক্তার জাকিউল হাসান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আবুল হোসেন তালুকদার, শরীফ হোসেন খান, আজিজুর রহমান রিপন, আরমান আলী, বিশিষ্ট ব্যাংকার আনিসুর রহমান, বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল রিয়াদ ইংলিশ শাখার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ডাক্তার শাহ আলম, জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান চৌধুরী, এরশাদ, বাবুল হোসেন, গোলাম সারওয়ার, জিয়া উদ্দিন, আরব বাংলা দর্পনের এ বি এম বুলবুল, রুহুল আমীন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের শেষে প্রবাসী বাংলাদেশী শিল্পীদের অংশগ্রহণে পরিবেশিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানটির সার্বিক সহযোগিতা করে তৈরি পোশাক আমদানি কারক সমিতি, আল উজির মার্কেট রিয়াদ শাখা।


               

 
 
 
 
 
 

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ-লন্ডন থেকে
বাংলা নববর্ষকে লন্ডনের বাঙালিদের মাঝে নিজস্ব সংস্কৃতি- পান্তা, ইলিশ, পিঠা, ঘুরি, লাঠিখেলা, ষাঁড়ের লড়াই, গান ভাটিয়ালি, দেশাত্মবোধক, জারি গান, কবি গান, লালনগীতি, নজরুল গীতি, রবীন্দ্রসঙ্গীত ইত্যাদিকে নতুন প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দেয়া আর পুরনোদের মাঝে নতুন করে বাঙালির ঐতিহ্যবাহী নিজস্ব সংস্কৃতি লালন ও চর্চা অব্যাহত এবং সেই সাথে ব্রিটিশ মূলধারার নিউজ মিডিয়া ও সংস্কৃতির সাথে সেতুবন্ধনের মধ্যদিয়ে বাঙালির প্রাণের এই উৎসবকে ব্রিটেনের সকল স্তরের মানুষের কাছে ব্র্যান্ড করে দেয়ার অন্যতম এক উদ্যোগ হাতে নিয়ে লন্ডনের সবচাইতে জনপ্রিয় বাংলা রেডিও-বেতার বাংলা(১৫০৩) বেশ উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে পালন করলো বাংলা নববর্ষ। এ উপলক্ষে বেতার বাংলার পূর্ব লন্ডনের অফিসের সামনের খালি জায়গায় উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে দিনব্যাপী আয়োজন করা হয় ওপেন আলোচনা সভা, সেমিনার, গানের উৎসব, কবিতা আবৃত্তি, কৌতুক, নৃত্য, নাটক ইত্যাদি নানান ধর্মী ব্যাপক এক আয়োজনের সমারোহ। সঙ্গে সঙ্গে সেই উন্মুক্ত অনুষ্ঠানটি সরাসরি বেতার বাংলার ১৫০৩ টিউনের মাধ্যমে অনলাইনে সারা বিশ্বে লাইভ সম্প্রচারের ব্যবস্থায় সমগ্র ব্রিটেন জুড়ে ব্যাপক সাড়া পড়ে যায়।রোববার ছিলো সরকারি ছুটি। তারউপর বৈরি আবহাওয়া আর গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি- সব কিছু উপেক্ষা করে ব্রিটেনের শত শত মানুষ, মিডিয়া অঙ্গনের নানান ব্যক্তিত্ব, সাংবাদিক, শিল্পী, সাহিত্যিক, লেখক, কবিদের ব্যাপক সমাগম ঘটে। ব্রিটেনের অন্যান্য শহর ও সিটি থেকে অহরহ বেতার বাংলার অফিসে টেলিফোনে হাজারো রিকুয়েস্ট বৈশাখের এই উৎসবকে করে তুলে আরো প্রাণবন্ত।

 

বেতার বাংলা মূলত সরাসরি লন্ডন এরিয়ার মধ্যে থেকে ফ্রিকোয়েন্সি এয়ারের মধ্যে শুনা যায়। তবে ইদানীং অনলাইনে ২৪ ঘণ্টাই লাইভ অনুষ্ঠান সম্প্রচার হচ্ছে।বিশ্বের যেকোন প্রান্ত থেকে অনলাইনে শুনা যায় ও অংশ নেয়া যায়। বেতার বাংলার বাংলাদেশ অফিস খুব তাড়াতাড়িই সিলেটে ওপেন হওয়ার আলোচনাও চলছে। শীগ্রই বেতার বাংলা সমগ্র ব্রিটেন সহ বিশ্বের যেকোন প্রান্ত থেকে রেডিও মাধ্যমে শুনা যাবে বলে বেতার বাংলা কর্তৃপক্ষ জানালেন।

 

অনুষ্ঠান উপলক্ষে সকালে বেতার বাংলার এমডি, ব্রিটেনের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের অতি পরিচিত মুখ, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা নাজিম চৌধুরী বেতার বাংলার শিল্পী কলা কুশলী ও নিউজ রিডারদের সাথে নিয়ে বেলুন উড়িয়ে বাংলা নববর্ষের প্রোগ্রামের শুভ সূচনা করেন। এসময় এমডি নাজিম চৌধুরী বলেন, তার একান্ত ইচ্ছা ছিলো নববর্ষের প্রথম দিনেই ভোর রাত থেকে এই উৎসবের উদ্বোধনী করার, যেখানে মাসব্যাপী এই অনুষ্ঠানের ধারাবাহিক অনুষ্ঠান বেতারে সরাসরি সম্প্রচার করার। কিন্তু সময়ের স্বল্পতা, নানাবিধ আনুষঙ্গিক কারণে এ বৎসর থেকে শুরু করা আনুষ্ঠানিকভাবে এই উৎসবের সূচনা একটু দেরীতে করতে হলো। তবে তিনি বলেন, আগামী বছর নববর্ষের প্রথম দিন থেকেই এই উৎসবের সূচনা করা হবে একই প্রাঙ্গণ থেকে।

 

নাজিম চৌধুরী আরো বলেন, বাঙালির প্রাণের এই সার্বজনীন উৎসবকে গোটা ব্রিটেনে ছড়িয়ে দিয়ে আমাদের সংস্কৃতির উজ্জ্বলতা এদেশের মূলধারার সাথে একীভূত করাই আমাদের টার্গেট, পাশাপাশি নির্মল আনন্দ ও বিনোদনের এই চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। সেই সাথে পান্তা ইলিশ আর হালখাতার সুচনার সেই চিরন্তন বাঙালির ইতিহাস ঐতিহ্য ব্রিটেনের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও যাতে চালু করা যায়-এমন উদ্যোগের কথা তিনি সকলকে স্মরণ করিয়ে দিলেন।

 

সারা দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের শুরুতে মঞ্চে বেতার বাংলার নিজস্ব শিল্পী ও কলাকুশলীবৃন্দ একের পর এক গান নাচ কবিতা আবৃত্তি পরিবেশন করেন। বিভিন্ন পর্যায়ের দিনব্যাপী নানান অনুষ্ঠানের নানা পর্যায়ে বেতার বাংলার প্রেজেন্টার ও নিউজ রিডাররা উপস্থাপনা করেন।

 

পাশাপাশি অনুষ্ঠানে একের পর এক আশা ব্রিটেনের বিভিন্ন কমিউনিটি ও বাঙালি প্রফেশনাল, রাজনীতিবিদ, কাউন্সিলর ও মিডিয়ার কর্ণধার এবং যারা স্পন্সর করেছেন, তাদের সকলের শুভেচ্ছা বক্তব্যও চলতে থাকে পর্যায়ক্রমে।

 

মঞ্চ থেকে বেতার বাংলার উপস্থাপকরা দর্শকদের ব্যাপক সাড়ায় অভিভূত হয়ে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের পাশাপাশি এই উৎসবের স্পন্সরদের নাম ঘোষণা করেন। জানা যায় বেতার বাংলার এই অনুষ্ঠানের স্পন্সর যারা ছিলেন তাদের মধ্যে রয়েছেন, রিজেন্সি, টাওয়ার হ্যামলেটস আর্টস, জিএমজি, বিমান বাংলাদেশ, এটিএন বাংলা ইউকে, চ্যানেল আই ইউকে, এনটিভি ইউকে ইউরোপ, চ্যানেল এস, চ্যানেল নাইন, সাপ্তাহিক জনমত, সাপ্তাহিক সুরমা, সাপ্তাহিক দেশ, সাপ্তাহিক বাংলা টাইমস সহ আরো অনেক প্রতিষ্ঠান।

অনুষ্ঠানের বিভিন্ন পর্যায়ে যারা গান গাইলেন তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন শিল্পী আলাউর রহমান, লাবনী বড়ুয়া, গৌরী চৌধুরী, নাহিদা, নাহিদ ফারজানা, সিজাত নাদিয়া নাহিদ,  জাহিদ কামাল নাহিদ নাজিজ, শম্পা দেওয়ান, হিমাংশু গোস্বামী ব্রিটেনের বিভিন্ন শহরের নামকরা স্থানীয় শিল্পী বৃন্দ।               

 
 
 
 
 
 

বাগেরহাট, ২১ এপ্রিল :
একমাত্র ছেলেকে হত্যায় দায়ে বাগেরহাটে মাসহ ৩ জনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।  দণ্ডিতরা হচ্ছেন মা লতিফা বেগম (৩৪), পরকীয়া প্রেমিক মনির মোল্লা (৪৪) ও তার বোন নাজমা  বেগম (৩৩)।
সোমবার বাগেরহাটের জেলা ও দায়রা জজ এস এম সোলায়মান এ রায় দেন। এসময় আসামীরা আদালতে কাঠগড়ায় ছিলেন।  মামলা পরিচালনায় সরকার পক্ষে ছিলেন বাগেরহাট আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) শেখ মোহম্মদ আলী। আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট ফরিদ উদ্দিন আহম্মেদ। মামলা সূত্র মতে,  মোল্লাহাট উপজেলার নগরকান্দি গ্রামের ইকু বিশ্বাসের স্ত্র লতিফার সঙ্গে প্রতিবেশি মনিরের পরকীয়া প্রেম ছিলো। যা নিয়ে দাম্পত্য কলহের এক পর্যায়ে লতিফা মনিরকে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। এরপর নাজমাকে নিয়ে তারা ডিপজলকে হত্যার ষড়যন্ত্র করে। হত্যাকান্ডের আগের দিন ইকু বিশ্বাস বাড়ির বাইরে ছিলেন। পরদিন ভোর থেকে ডিপজলকে ঘরে খুঁজে না পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে পুকুর থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার হয়।
এ ঘটনায় মোল্লাহাট থানায় প্রথমে অপমৃত্যু মামলা হয়। পরে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনের সূত্র ধরে ওই বছরের ২৯ অক্টোবর ডিপজলের বাবা ইকু বাদী হয়ে ছেলে হত্যার অভিযোগে মনির ও তার বোন নাজমাকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন।
মোল্লাহাট থানার এসআই মো. নজিবুল হক তদন্ত শেষে ২০০৬ সালের ১০ মে যে অভিযোগপত্র দেন, তাতে আসামির তালিকায় ডিপজলের মা লতিফাকেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়।
ইকুর স্ত্রী লতিফা প্রতিবেশী মনিরের সঙ্গে বিয়ে বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে ২০০৫ সালের ১২ এপ্রিল নিজের ছেলে ডিপজলকে হত্যা করেন বলে আদালতে প্রমাণিত হয়েছে। যার প্রেক্ষিতে আদালত এ রায় দিয়েছে।
               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২১ এপ্রিল :
পানির ন্যায্য হিস্যার দাবিতে তিস্তা অভিমুখে বিএনপির লংমার্চ শুরুর স্থানে পরিবর্তন এনেছে দলটি। মঙ্গলবার সকাল আটটায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে লংমার্চ শুরু করার কথা থাকলেও সপ্তাহের কর্মদিবসে যানজট এড়াতে এয়ারপোর্টের গোল চক্কর পাড় হয়ে তা শুরু হবে। একই সঙ্গে চারটি পথসভা ও একটি সমাবেশ করার কথা থাকলেও পথসভার সংখ্যা দুটি বাড়ানো হয়েছে। তাই লংমার্চে সাতটি পথসভা হবে।
সোমবার বিকেল সাড়ে তিনটায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ এ কথা জানান। লংমার্চের সার্বিক অবস্থা তুলে ধরতে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়।
লংমার্চের জন্য পুলিশের অনুমতি নেয়া হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে রিজভী বলেন, “লংমার্চের কর্মসূচি নিয়ে পুলিশের সঙ্গে প্রতিনিয়ত কথা হচ্ছে। আমরা তাদের এ বিষয়ে মৌখিকভাবে জানিয়েছি।”
রিজভী বলেন, “এখানে অনুমতি নেয়ার তো কিছুই নেই। আমাদের কর্মসূচি ঢাকায় নেই, ঢাকার বাইরে সমাবেশ হবে। স্থানীয় নেতৃবৃন্দ সেভাবে ব্যবস্থা করবেন।”
তিনি বলেন, “লংমার্চ ঢাকার এয়ারপোর্ট থেকে শুরু হয়ে রংপুর পৌঁছানো পর্যন্ত সাতটি পথসভা করবে। প্রথম দফায় গাজীপুরের কালিয়াকৈরে সকাল সাড়ে নয়টায়, টাঙ্গাইলের বাইপাস মোড়ে সাড়ে ১১টায়, সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড়ে সাড়ে ১২টায়, বগুড়ার মাটিডালিতে দুপুর দুইটা ৩০ মিনিটে, গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ সাড়ে তিনটায় ও পলাশবাড়িতে সাড়ে চারটায় শেষ পথসভা হবে।”
এরপর লংমার্চ রংপুর বিভাগীয় শহরে পৌঁছবে। পরদিন বুধবার তিস্তা ব্যারেজের ডালিয়া অভিমুখে লংমার্চ শুরুর আগে সকাল নয়টায় পথসভা অনুষ্ঠিত হবে। পথসভা শেষে সকাল এগারোটায় ডালিয়ায় সমাবেশ হবে। রংপুরের পথসভার স্থান পরে জানানো হবে।
রিজভী আহমেদ বলেন, “অন্যায়ভাবে ভারত পানি প্রত্যাহার করছে। বিভিন্ন ড্রেনেজ ও চ্যানেলের মাধ্যমে পানি নিয়ে নিচ্ছে। তারা বাংলাদেশে আসতে দিচ্ছে না। এটি জুলুম, এটি অন্যায়।”
তিনি বলেন, “এই লংমার্চের বিরুদ্ধে যারা কথা বলছেন তারা জনগণের বিপক্ষেই ভূমিকা পালন করছেন।”
এক প্রশ্নের জবাবে রিজভী বলেন, “এটা বিএনপির কর্মসূচি। অনেককেই আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। যে কেউ এতে অংশ নিতে পারে।”               

 
 
 
 
যোগাযোগ করুন..
01712 247 900

dainiksylhet@yahoo.com