Home Home Page Rank NTV ONLINE ETV ONLINE BANGLA  VISION ONLINE CHANEL I ONLINE EKATTOR TV ONLINE
২৫-১০-২০১৪ শনিবার

 দৈনিক সিলেট ডটকম সিলেট বিভাগের সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল-আমাদের সাথে থাকুন, নিজেকে আপডেট রাখুন...   

 
 
এই জনপদ
 
 
 
 
 

জালালাবাদ রোটার‌্যাক্ট ক্লাবের ৬০৭ তম নিয়মিত সভা ও রোটার‌্যাক্টর এনামুল ইসলামের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শনিবার অনুষ্ঠিত হয়। রোটারেক্টর জামাল আহমদের সভাপতিত্বে জালালাবাদ রোটারী হসপিটালস্থ সেমিনার কক্ষে ক্লাবের নিয়মিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রোটারী ক্লাবের ডি.আর.সি.সি.(আর.আই ডি-৩২৪২, বাংলাদেশ) রোটারিয়ান মুফতি শামিম আহমদ। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, রোটারেক্ট ক্লাব অব জালালাবাদ দীর্ঘদিন যাবৎ সমাজের জন্য কাজ করে যাচ্ছে এবং সমাজকে বিভিন্ন পেশার আইকন উপহার দিচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, এ ক্লাব বহু ডাক্তার, ব্যাংকার ও শিক্ষক সহ বিভিন্ন নেতৃত্ব তৈরী করে দিয়েছে। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আজকের অনুষ্ঠানের সংবর্ধিত সদস্য রোটার‌্যাক্টর এনামুল ইসলামের যে কৃতিত্ব তা সামজে বিরল। ছাত্র থাকা কালীন অবস্থায় আন্তর্জাতিক জার্নালে তিনটি অৎঃরপষবং প্রকাশ করা সত্ব্যিই প্রশংসার দাবীদার। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন সংবর্ধিত রোটার‌্যাক্টর এনামুল ইসলাম। তিনি তার বক্তেব্যে বলেন যে ছাত্রত্ব থাকাকালীন অবস্থায় অৎঃরপষবং প্রকাশ করা সম্ভব হয়েছে শুধুমাত্র কঠিন শ্রম ও তার শিক্ষক সহযোগী অধ্যাপক আব্দুল লতিফ স্যারের সহযোগিতায়। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন রোটার‌্যাক্টর রাসেল, রোটার‌্যাক্টর ফয়ছল, রোটার‌্যাক্টর তারেক, রোটার‌্যাক্টর চয়ন, রোটার‌্যাক্টর হাবিব, রোটার‌্যাক্টর পলক, রোটার‌্যাক্টর পিকলু, রোটার‌্যাক্টর পুলক, রোটার‌্যাক্টর আশিক, রোটার‌্যাক্টর রোমান, রোটার‌্যাক্টর তৌফিক, সোয়েজ, খালেদ প্রমুখ।   

 
 
 
 
 
 
 

দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোগলাবাজারে রাস্তার প্রতিবন্ধকতা অপসারণের দাবীতে পুলিশ কমিশনার বরাবরে স্মারকলিপি পেশ করেছেন ভুক্তভোগী জনসাধারণ। শনিবার দুপুরে সিলেট মেট্টোপলিটন পুলিশ কমিশনার কামরুল আহসান বরাবরে ভুক্তভোগী জনসাধারণ এ স্মারকলিপি তুলে দেন। তার পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এস এম রোকন উদ্দিন। এ সময় তিনি দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ডিসি (সাউথ) কে নির্দেশ দেন। স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন মোগলাবাজার ইউনিয়নের রাঘবপুর গ্রামের মতিউর রহমান, জাকির হোসেন, জাহিন আহমদ, আব্দুল মুনিম প্রমুখ।
স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয় দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোগলাবাজার থানার মোগলাবাজার সদর ইউনিয়নের রাঘবপুর গ্রামে প্রায় দেড়শতাধিক বছর যাবৎ থেকে একই গ্রামের তেজন মিয়া, নানু মিয়া ও আলাউদ্দিন গংদের বাড়ির সম্মুখের রাস্তা (আঙ্গুর মিয়ার বাড়ী হতে ফরিদ মিয়ার বাড়ী পর্যন্ত) দিয়ে এলাকার জনসাধারণ চলাচল করে আসছে। কিন্তু প্রায় মাস তিনেক আগে উক্ত রাস্তার উপর পশ্চিম পার্শ্বে তেজন মিয়া গংরা পাকাঘর নির্মাণের কাজ শুরু করে। এতে বাধার সৃষ্টি করলে উক্ত পক্ষ রাস্তা সলিং করা থাকা সত্বেও ইট তুলে চলাচলের রাস্তায় টয়লেটের ট্যাংকির গর্ত খনন করে এলাবাসীর চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। এ ব্যাপারে জনৈক গেদা মিয়া বাদী হয়ে মোগলাবাজার থানায় সাধারণ ডায়রী করেন। ডায়রী নং-৯২৮, তাং ২৪/০৭/১৪ইং। এর তদন্তকারী কর্মকর্তা ঘটনার সত্যতা পেয়ে রিপোর্ট দাখিল করেন। রিপোর্ট নং-৭৪, ধারা ১০৭/১১৭। যা সিলেট নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ২য় আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। পরবর্তীতে জনৈক খলকুর রহমান অতিরিক্ত জেলা হাকিম আদালতে বিবিধ মামলা নং ২২/২০১৪ইং ফৌজদারী কার্যবিধি আইনের ১৪৭ ধারা দায়ের করলে উক্ত আদালত মোগলাবাজার থানার ওসিকে তদন্তপূর্বক সত্য প্রতিবেদন আদালতে দাখিলের নির্দেশ প্রদান করা হয়। যাহা আদালতে বিচারাধীন আছে। পরবর্তীতে উক্ত রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী হিসেবে একই গ্রামের খলকুর রহমান, গেদা মিয়া, ফরিদ মিয়া, আজিজুল হক, সাত্তার ও সাঈদ আলী গংদের বিরুদ্ধে তেজন গংরা একটি মামলা দায়ের করেন যা তদন্তাধীন রয়েছে। এ সময় খলকু গংরা উর্ধ্বতন সহকারী জজ আদালত সিলেটে একটি স্বত্ব মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১২৮/ ২০১৪ইং। এ মামলা দায়েরের পর থেকে তেজন গংরা আরো উত্তেজিত হয়ে উঠে। তারা গ্রামের জনসাধারণের দীর্ঘদিন যাবৎ চলাচলের রাস্তায় বাঁশের বেড়া বসিয়ে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। যা মোগলাবাজার থানা পুলিশ বার বার নিষেধ করেছে। এর পরেও ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে চলাচলকারী জনসাধারণকে বাধার সৃষ্টি করতে বর্তমানে রাস্তার উভয় পার্শ্বে বাঁশের বেড়া এবং মধ্যখানে গর্ত করে রেখেছে। এ নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উদ্যোগ গ্রহণ করেও সুফল লাভ করেননি। বর্তমানে রাস্তা নির্ভর জনসাধারণকে অবরুদ্ধ অবস্থায় চলাচল করতে হচ্ছে।
স্কুল-কলেজ গামী ছাত্রছাত্রী, মুমূর্ষ রোগীদের এ নিয়ে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। গত ১৪ অক্টোবর মাননীয় আদালত মোগলাবাজার থানাকে রাস্তার প্রতিবন্ধকতার অপসারণের আদেশ দেন। অথচ আজোবদি তা অপসারিত হয়নি। ফলে পূর্বপুরুষ কর্তৃক স্বীকৃত এলাকাবাসী সহ সর্বজন বিদিত রাস্তাটি ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে বন্ধ করে দেওয়ায় স্থানীয় অধিবাসীরা হতাশায় ভুগছেন। মানুষের মৌলিক অধিকার সমূহের মধ্যে স্বাধীনভাবে চলাচলের অধিকার স্বীকৃত। অথচ দীর্ঘদিন যাবৎ একটি গোষ্ঠী এলাকার শতাধিক জনসাধারণকে রাস্তা বন্ধ করে অবরুদ্ধ করে রেখেছে।
এমতাবস্থায় পূর্ব পুরুষ, এলাকাবাসী ও সরকার কর্তৃক স্বীকৃত, রাঘবপুর গ্রামের বিরোধমান রাস্তাটির প্রতিবন্ধকতা অপসারণ করে স্থানীয় জনসাধারণের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়ার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে প্রশাসনের সদয় সুদৃষ্টি কামনা করেছেন ভুক্তভোগি জনসাধারণ।
               

 
 
 
 
 
 
 

দিরাই প্রতিনিধি :
দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ-এর পরিচালনায় সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার চরনারচর ও করিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের যৌথ উদ্যোগে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের স্থানীয় একটি কনফারেন্স হলে ২১-২৩ অক্টোবর ১৫৩তম তিন দিনব্যাপি ‘নারী নেতৃত্ব বিকাশ শীর্ষক ফাউন্ডেশন কোর্স’ অনুষ্ঠিত হয়। সমাপনি অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে সনদপত্র বিতরণ করেন ব্র্যাকের প্রোগ্রাম স্পেশালিস্ট অফিসার আনোয়ার হোসেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাকের এডভোকেসি স্পেশালিস্ট অফিসার মাসুদ রানা, দি হাঙ্গার প্রজেক্টের সিলেট বিভাগীয় সমন্বয়কারী তুহিন আলম, রাজশাহী বিভাগীয় সমন্বয়কারী জাকারুল ইসলাম, সুনামগঞ্জ জেলা সমন্বয়কারী আব্দুল হালিম, দিরাই উপজেলা সমন্বয়কারী এএসএম আখতারুল ইসলাম, প্রজেক্ট কর্মকর্তা একে কুদরত পাশা, করিমপুর ইউনিয়ন সমন্বয়কারী মুহাম্মদ আব্দুল বাছির সরদার ও চরনারচর ইউনিয়ন সমন্বয়কারী জহিরুল ইসলাম প্রমূখ। কোর্সে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার চরনারচর ও করিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে ৩১ জন নারী নেত্রী অংশগ্রহণ করে। প্রশিক্ষণে উপস্থিত ছিলেন করিমপুর ইউনিয়নের মোছাঃ মজিদা বেগম, মোছাঃ রাজিয়া বেগম, মোছাঃ রেহানা বেগম আঙ্গুরা, মোছাঃ রেবা বেগম, মোছাঃ আকলিমা বেগম, মোছাঃ সুফিয়া বেগম, মোছাঃ সেলু বেগম, দিপ্তীরাণী দাস, মোছাঃ শিবলী বেগম, মোছাঃ সেনুকা বেগম, মোছাঃ আছিয়া বেগম, মোছাঃ আছমা বেগম, মালতী রাণী দাস, অঞ্জনা রাণী, লক্ষ্মীরাণী ও শোভা রাণী।
               

 
 
 
 
 
 
 

এ.জে লাভলু, বড়লেখা প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও বীর মুক্তিযোদ্ধা কামান্ডার জনাব সিরাজ উদ্দিনের মৎস খামারে বিষ প্রয়োগ করে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় দুইলক্ষ টাকার পোনা মাছ নিধন করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনাটি ঘটেছে গত রাতে উপজেলার পশ্চিম কাঁঠালতলীস্থ বীর মুক্তিযোদ্ধা কামান্ডার সিরাজ উদ্দিনের বসতবাড়ীর পাশে একটি নিজস্ব খামারে। জানা গেছে, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ উদ্দিন মৎস্য খামারে ব্যবসায়ী ইউপি সদস্য বদরুল ইসলাম ও সেলিম উদ্দিনকে নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে মাছ চাষ করে আসছিলেন। বদরুল ইসলাম জানান, গত রাতে কে বা কারা শত্র“তাবশত বিষ প্রয়োগ করে মাছগুলো মেরে ফেলে। শ্ক্রবার সকালে ঘটনাস্থলে সরজমিনে গেলে দেখা যায় পুকুরের হাজার হাজার মাছ মরে ভেসে উঠছে। বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আবুল হাসেম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় থানায় মামালার প্রস্তুতি চলছে। মামলা হলে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

               

 
 
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ  
ছাতকে বিশিষ্ট ভাষা সৈনিক ঢাকসুর সাবেক জিএস তত্বাবধায়ক সরকারের রূপকার আধ্যাত্মিক নেতা অধ্যাপক গোলাম আজম এর গায়েবানা জানাযা অনুষ্টিত হয়েছে। শনিবার শহরের মন্ডলীভোগস্থ লাল মসজিদ প্রাঙ্গনে অনুষ্টিত জানাযায় উপস্থিত ছিলেন, সুনামগঞ্জ জেলা উলামা মাশায়েখ বিষয়ক সেক্রেটারী মাওলানা জালাল উদ্দিন, উপজেলা জামায়াতের আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মখছুছুর রহমান, পৌর জামায়াতের নায়েবে আমীর ইউপি চেয়ারম্যান এড, সুফি আলম সুহেল, উপজেলা শাখার সেক্রেটারী মাওলানা আকবর আলী, সহকারী সেক্রেটারী মাওলানা মনসুর আহমদ, জামায়াতের নেতা হুসাইনুজ্জামান লিটন, কর্মপরিষদ সদস্য লুৎফুর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার নোমান আহমদ, মিজানুর রহমান, পৌর স্বেচ্ছাসেবকদলের সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান, ৮নং ওয়ার্ড সদস্য আমিরুল হক, ছাত্রশিবির উপজেলা উত্তর সভাপতি আশরাফ উদ্দিন, পূর্ব শিবির সভাপতি আব্দুল তাহিদ, পশ্চিম সভাপতি হাফেজ বুরহান উদ্দিন, দক্ষিণ সভাপতি ইমরুল হাসান, পৌর সভাপতি শাহীন কাওছার সানি, ছাতক ডিগ্রী কলেজ সভাপতি কামরুল হাসান সবুজ, গোবিন্দগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ সভাপতি আনছার আলী প্রমুখ। জানাযায় ইমামতি করেন মাওলানা জালাল উদ্দিন।
               

 
 
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ  
ছাতকে ১০কেজি গাঁজাসহ পিতা-পুত্রকে আটক করেছে র‌্যাব। শনিবার সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের খাড়াই ব্রিজ সংলগ্ন এলাকা থেকে গাঁজাসহ তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলো, বড়কাপন-বাদেশ্বরীপুর গ্রামের ফজর আলী (৫০) ও তার ছেলে দুলাল (৩০)। এ সময় তারা নৌকাযোগে গাঁজা নিয়ে যাচ্ছিল। ফজর আলীর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।
               

 
 
 
 
 
 
 

দিরাই উপজেলা সংবাদদাতা :
দিরাইয়ে কিছুদিন ধরে চোরের উপদ্রব শুরু হয়েছে, প্রায়ই মোবাইলের দোকানসহ বিভিন্ন ব্যক্তির পকেট থেকেও মোবাইল নেয়ার ঘটনা ঘটেছে। মাত্র কয়েক দিনের ব্যবধানে দিরাই বাজারের বেশ কয়েকটি দোকানে মোবাইল চুরির ঘটনা ঘটলে তৎপর হয়ে ওঠে স্থানীয় থানা পুলিশ। এরই জের ধরে মোবাইল চোর চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, উপজেলার টুকদিরাই গ্রামের মৃত কিনাই উল্লার ছেলে আকবর ও চ-িপুর গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে আশিকুরকে গ্রেফতার করেছে দিরাই থানা পুলিশ।  বৃহস্পতিবার রাতে এসআই মোবারকের নেতৃত্বে চোরাইকৃত মোবাইল সেট বিক্রির সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টুকদিরাই গ্রাম থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে পৌরশহরের দোওজ গ্রামের শিপনের চুরি হওয়া আইফোনসহ একাধিক মোবাইল সেট ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়। আকবরের বিরুদ্ধে দিরাই থানায় হত্যা মালামালাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। পুলিশ ও একাধিক সূত্রে জানা গেছে, চার বছর ধরে আকবর ও আশিকুর মোবাইল চুরির সাথে জড়িত রয়েছে। তাদের একটি চক্র রয়েছে যারা চুরির কলাকৌশল ও নেতৃত্ব দেয়, আর আকবর এবং আশিকুর চোরাইকৃত মোবাইল সেট সিলেটের করিমউল্লা মার্কেটে বিক্রি করে। সম্প্রতি দিরাই থানা পয়েন্টস্থ সেন মাকের্টের নাজাফ টেলিকম থেকে ২২টি স্যামসাং মোবাইল সেট, ল্যাপটপ ও নগদ টাকাসহ আড়াই লাখ টাকার মালামাল চুরি হয়। এ ব্যাপারে এসআই মোবারক বলেন, দিরাইয়ে সংঘবদ্ধ মোবাইল চোর সিন্ডিকেট রয়েছে, গ্রেফতারকৃত দুই সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমা-ের আবেদন করা হয়েছে। সেন মার্কেটের মোবাইল দোকানে চুরিসহ একাধিক মোবাইল চুরির সাথে তাদের জড়িত থাকার সন্দেহ করছে পুলিশ।
               

 
 
 
 
 
 
 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার শাখাইতি গ্রামের কতিপয় লোক প্রচলিত আইনের ধারধারেনা । প্রায় ৩ বছর ধরে তারা অবৈধভাবে প্রশাসনকে বৃদ্ধাক্সগুলি দেখিয়ে একটি মাদ্রাসার উন্নয়নের নামে প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই পশুর হাট বসিয়ে প্রকাশ্যে টোল আদায় করছে। বৃহস্পতিবার ও তাদেরকে অবৈধ পশুর হাট বসিয়ে টোল তোলতে দেখা গেছে। স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন এই পশুর হাটকে অবৈধ চিহ্নিত করলেও এখন হাট বসিয়ে তোলা হচ্ছে কি না তা তাদের জানা নেই বলে জানিয়েছেন। সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, ২০১২সনের শুরু থেকে সদর উপজেলার শাখাইতি ইমদাদুল উলুম মাদ্রাসার নামে এলাকার কিছু দুষ্কৃতিকারী ব্যাক্তি প্রতি বুধবার প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই জোরপূর্ব বাজার বসিয়ে পশু বিকিকিনি করছে। এ নিয়ে গতবার এলাকাবাসী দুইপক্ষে বিভক্ত হয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। গত ২০ আগস্ট উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা প্রদীপ সিংহ অবৈধ পশুর হাট বসানোর অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য কুতুব উদ্দিন, আব্দুল কাইয়ুম, জামাল উদ্দিনসহ ৩জনকে ৬ মাসের দ- প্রদান করেন। এসময় কয়েকটি অবৈধ দোকানও গুড়িয়ে দেয় প্রশাসন। তারপরও প্রতি সপ্তাহেই অবৈধ পশুর হাট বসছে। গ্রামের ইব্রাহিম আলী, হাজী আব্দুল হান্নান ও আব্দুল অদুদসহ একটি সিন্ডিকেট এই অবৈধ পশুর হাট নিয়ন্ত্রণ করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। তবে তারা মাদ্রাসার উন্নয়নের নামে টোল তোলছেন বলে জানান।অভিযুক্তরা জোরপূর্বক হাট বসিয়ে তারা হাতিয়ে নিচ্ছেন মোটা অংকের টাকা। দেখা গেছে প্রতি বুধবার শাখাইতি মাদ্রাসার ছাত্র ও শিক্ষকদের দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের নামে হাসিল কাটানো হচ্ছে। প্রতিটি পশু প্রতি ৫০০-১০০০হাজার টাকা আদায় করছেন তারা।সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয় (সার্বিক) সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত ব্যাক্তিরা কয়েক মাস আগে হাইকোর্টে একটি রীট পিটিশন করে বাজারের অনুমোদনের জন্য। হাইকোর্ট ২০ হাজার টাকা প্রতি মাসে প্রশাসনকে দিয়ে বাজার করার অস্থায়ী একটি আদেশ দেয়। পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ওই আদেশের প্রেক্ষিতে জানিয়ে দেয় এই বাজার আইনসিদ্ধ নয় বিধায় প্রশাসন অনুমতি দিতে পারবেনা। পরে আবেদনকারীদের এই রিট খারিজ হয়ে যায় বলে সূত্র জানায়।সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম বলেন, শাখাইতি গ্রামে কোন পশুর হাটের অনুমোদন দেয়নি প্রশাসন। কারা এখানে বাজার বসিয়েছে তা আমাদের জানা নেই। যারা অবৈধভাবে হাট বসিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
               

 
 
 
 
 
 
 

কাজী জমিরুল ইসলাম মমতাজ , সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :
দক্ষিণ সুনামগঞ্জে বাল্য বিবাহ, যৌতুক ও এমডিজি সংক্রান্ত সামাজিক সচেতনতা ও উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালা ও র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহ¯পতিবার সকাল ১১টায় উপজেলা গভর্ন্যান্স প্রজেক্ট ও ইউনিয়ন পরিষদ গভর্ন্যান্স প্রজেক্ট স্থানীয় সরকার বিভাগ\'র বাস্তবায়নে, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে উপজেলা সদরের সিলেট-সুনামগঞ্জ মহা সড়ক হয়ে শান্তিগঞ্জ বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলার এফআইভিডিবি ট্রেনিং সেন্টারে গিয়ে শেষ হয়। পরে উপজেলার এফআইভিডিবি ট্রেনিং সেন্টারের হল রুমে বাল্য বিবাহ, যৌতুক ও এমডিজি সংক্রান্ত সামাজিক সচেতনতা ও উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।
কর্মশালায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আবুল কালামের সভাপতিত্বে, রথপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশিষ চক্রবর্তীর পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুর্শেদা জামান।
কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওঃ তৈয়্যিবুর রহমান, উপজেলা গভর্ন্যান্স প্রজেক্ট\'র সুনামগঞ্জ জেলা ফ্যাসিলিটেটর মোঃ জিল¬ুর রহমান।
কর্মশালায় আরও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এম এম ইলিয়াস, আব্দুল মজিদ কলেজের অধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, লিগেল এইড\'র কর্মকর্তা অ্যাডঃ নিপেশ পাল, সুনামগঞ্জ জেলা কাজী সমিতির সহ সাধারণ স¤পাদক ও জয়কলস ইউনিয়ন নিকাহ রেজিস্টার সাংবাদিক কাজী এম জমিরুল ইসলাম মমতাজ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও দরগাপাশা আব্দুর রশিদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান, জয়কলস ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদ মিয়া, উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি ও ইউপি সদস্যা সিপু রাণী সুত্রধর, আক্তাপাড়া জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব হাফিজ মাওঃ আব্দুল করিম, দরগাপাশা ইউপি সদস্য এজাজ হোসেন চৌধুরী, দামোধরতপী মাহমুদপুর দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওঃ শহিদুল ইসলাম, পশ্চিম বীরগাওঁ ইউনিয়ন নিকাহ রেজিস্টার কাজী মাওঃ শায়খুল ইসলাম প্রমুখ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ সোহেল মাহমুদ, উপজেলা পঃ পঃ কর্মকর্তা চৌধুরী মোঃ রাজিব মোস্তফা, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা পিয়ার আহমদ, পশ্চিম পাগলা ইউপি চেয়ারম্যান জগলুল হায়দার, পশ্চিম বীরগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, শিমুলবাক ইউপি চেয়ারম্যান হাজী আব্দুল¬াহ মিয়া, পাথারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুর রশিদ আমিন, দরগাপাশা ইউপি চেয়ারম্যান ছুফি মিয়া, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ এম এম ইলিয়াছ আলী, উপজেলা ক¤িপউটার ফেয়ার ট্রেনিং ইসস্টিটিউটের পরিচালক সাংবাদিক সোহেল তালুকদার, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ কাজী সমিতির সভাপতি ও পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়ন নিকাহ রেজিস্টার কাজী মাওঃ আইয়ূব আলী, দরগাপাশা ইউনিয়ন নিকাহ রেজিস্টার কাজী মাওঃ মফিজুর রহমান, পাথারিয়া ইউনিয়ন নিকাহ রেজিস্টার কাজী মাওঃ আব্দুল আলী, জয়কলস উজানীগাঁও রশিদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সচিন্দ্র চন্দ্র সরকার, ডুংরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মোনায়েম, সাংবাদিক সালেহ আহমদ হৃদয় সহ উপজেলার সকল দপ্তরের কর্মকর্তা, শিক্ষক, সাংবাদিক, কাজী, ইমাম, এনজিও কর্মকর্তা, ছাত্র/ছাত্রী ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ প্রমূখ।
               

 
 
 
 
 
 
 

সিলেটের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার(সার্বিক) এমডি আল আমিন বলেছেন, শিক্ষক ও ইমাম সাহেবরা মানুষ গড়ার কারিগর হিসেবে কাজ করেন। তাদেরকে অন্যান্যরা  অনুসরন করে। তাই তাদের জ্ঞান, দক্ষতা, দৃষ্টিভঙ্গি ও আচরন পরিবর্তনের জন্য উচ্চতর প্রশিক্ষন প্রয়োজন। ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমী সিলেট-এর ২০১৪-২০১৫ অর্থ বছরের নিয়মিত প্রশিক্ষনের ৮১০তম দলের  উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
 বধুবার নগরীর বালুচরস্থ ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমী মিলনায়তনে একাডেমীর উপ-পরিচালক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে এবং সমাজ বিজ্ঞান প্রশিক্ষন (কৃষি) কৃষিবিদ মো: মোশাররফ হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাফেজ ফজলুর রহমান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমীর সহকারী পরিচালক মো: আনোয়ারুল কাদির। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন  ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহকারী পরিচালক শাহ মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম,  একাডেমীর গবেষনা কর্মকর্তা মনজুরুল করীম ।
   এমডি আল আমিন তার বক্তব্যে আরও বলেন, ইমাম সাহেবরা মানুষের কাছাকাছি অবস্থান করেন। তাই আমাদের সমাজে যেসব কুসংস্কার রয়েছে তা রোধ করতে তারা গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে থাকেন। ইমাম সাহেবদের এই প্রশিক্ষন আয়োজন করার জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ইমাম সাহেবরা এই প্রশিক্ষন কর্মশালা করার মাধ্যমে ব্যাক্তিগত ভাবে অনেক উপকৃত হতে পারবেন। তারা তাদের প্রশিক্ষবদ্ধ জ্ঞান কাজে লাগাতে পারলে দেশ সামাজিক ও অর্থনৈতিক ভাবে এগিয়ে যাবে।
 উল্লেখ্য ১৯৭৯ সাল থেকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রথম ইমামদের প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করা হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে ৮১০০০ ইমাম সাহেব ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমি থেকে প্রশিক্ষন লাভ করে  টিকাদান কর্মসূচী, নিরক্ষরতা দূরীকরন, বাল্যবিবাহ রোধ, মাদকাসক্তি, প্রাথমিক স্বাস্থ্য  পরিচর্চা, বৃক্ষ রোপন ও বনায়ন, মৎস্য চাষ, হাঁস মুরগীর খামার প্রতিষ্ঠায় উৎসাহ প্রদান এবং  জঙ্গীবাদ নির্মূল ও যৌতুক বিরোধী আন্দোলনে বিশেষ অবদান রাখছেন।

               

 
 
 
জনমত জরিপ

তিস্তা অভিমুখে লংমার্চ করে বিএনপি কি রাজনৈতিক ভাবে লাভমান হয়েছে?

 
হ্যাঁ না
 
 

ফলাফল দেখুন

 
 

সিলেট, ২৫ অক্টোবর :
সিলেট কোতোয়ালি থানার ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বিকেলে থানা প্রাঙ্গনে এই ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কোতোয়ালি থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান।
থানার সেকেন্ড অফিসার শাহ মো. মোবাশ্বিরের পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) ফয়সল মাহমুদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি পুলিশের এসআই শাহীন উদ্দিন।
মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) ফয়সল মাহমুদ তার বক্তব্যে বলেন, দেশে জনগণের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। কিন্তু সেই অনুপাতে পুলিশের সংখ্যা বাড়ছে না। তবু পুলিশ জনগণের বন্ধু হিসেবে কাজ করে চলেছে। আপনাদেরকেও পুলিশকে সহযোগীতা করতে হবে। তবেই সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ গড়া সম্ভব হবে।
 এসময় ওপেন হাউজ ডেতে কোতয়ালী থানার সর্বস্তরের জনগনের বিভিন্ন বিষয়াদীর মতামত নেন এবং চুরি ছিনতাই ডাকাতি মাদক এসব বিষয়ে নির্মুল করতে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।
           

 
 
 
 

সিলেট সিটিতে নির্মিতব্য পানি শোধানাগার প্রকল্পে বিনিয়োগের আগ্রহ দেখিয়েছে চীনের অন্যতম বৃহত লিংজি এনভায়রনমেন্টাল প্রটেকশন গ্র“প। এই প্রকল্পে চীনের সরকারী ব্যাংকের অর্থ বিনিয়োগের সুযোগ আছে বলেও জানিয়েছেন তারা। শুক্রবার সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী লিংজি এনভায়রনমেন্টাল প্রটেকশন গ্র“প পরিদর্শনকালে কোম্পানীর প্রেসিডেন্ট লিং জিয়ানজুন এই তথ্য জানান।
চীনের জিয়াংহু প্রদেশে অবস্থিত ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট তৈরীকারী বৃহত্তম প্রতিষ্টান পরিদর্শনকালে লিং জিয়ানজুন জানান, তাদের প্রতিষ্ঠান চীন সরকারের সাথে যৌথভাবে ইতোমধ্যে শতাধিক পানি শোধনাগার প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে। তাদের প্রতিষ্টানের নামে আমেরিকা, ব্রাজিল, ইন্দোনেশিয়া, ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রায় ২০০টি পেটেন্ট রয়েছে। চীনের পর এখন তারা দক্ষিণ এশিয়া ও আফ্রিকার দেশগুলোতে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট নির্মানে আগ্রহী। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ সরকারের সাথে ঢাকার সাভারে ট্যানারি শিল্প এলাকায় একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজও করছে তারা।
চীনের সরকারী টেলিভিশন সেন্ট্রাল চায়না টেলিভিশন (সিসিটিভি) পরিদর্শনকালীন চিত্র ধারণ করে। এসময় এক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, সিলেটের পানির সমস্যা সমাধানের জন্য একাধিক ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট করা এখন জরুরী হয়ে পড়েছে। এক্ষেত্রে চীনের প্রতিষ্ঠানগুলো প্রযুক্তিগত সহযোগিতা দিতে পারে।
মেযর বলেন, চেঙ্গেরখাল সংলগ্ন স্থানে একটি ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট তৈরীর প্রস্তাব ইতোমধ্যে মন্ত্রনালয়ের চূড়ান্ত অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। এই প্ল্যান্ট ছাড়াও নগরীর দক্ষিণ সুরমার জন্য একটি আলাদা ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট তৈরীর চিন্তাভাবনা চলছে। এই দুটি প্ল্যান্টের ব্যাপারে তাদের সাথে কথাবার্তা হয়েছে। চলতি বছরেই তারা এজন্য সিলেট সফরে এসে প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই করবে।
এই দুটি প্রকল্পে প্রয়োজনে চীনের সরকারী ব্যাংকের বিনিয়োগের সুযোগ আছে বলেও তারা জানিয়েছেন। মেয়র জানান, তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহনের আগে অবশ্যই দেশ বরেণ্য প্রকৌশলী প্রফেসর ড. জামিলুর রেজা চৌধুরীর সমন্বয়ে গঠিত উপদেষ্টা কমিটির পরামর্শ গ্রহন করা হবে।
পরিদর্শনকালে আরও উপস্থিত ছিলেন সোলারল্যান্ডের ওভারসিজ জেনারেল ম্যানেজার বিন্নী সুয়ে, লিংজি এনভায়রনমেন্টাল প্রটেকশন গ্র“প ওভারসিজ ডিপার্টমেন্টের জিএম মিসেস সোয়ান, ডিজিএম ডাহাই জিয়া, উশি জেনারেল চেম্বারের ভাইস প্রেসিডেন্ট ডো লিন।
সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রতিনিধিদলের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মেয়রের সহধর্মিনী সামা হক চৌধুরী, সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব, প্রধান প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) নুর আজিজুর রহমান, জনসংযোগ কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন মন্জু।
               

 
 
 

সিলেট, ২৫ অক্টোবর:
সরকার দলীয় এক প্রভাবশালী নেতার দাপট ও এক জামায়াতী নেতার ইন্ধনে সন্ত্রাসী চক্রের হামলা-মামলায় পুরো পরিবার বিপর্যস্ত হওয়ার অভিযোগ করেছেন এক নারী। শনিবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার গুলাঘাট গ্রামের আব্দুস সালামের স্ত্রী শেলী বেগম। তিনি এ দুই রাজনৈতিক নেতার প্রভাবে ফেঞ্চুগঞ্জ থানা পুলিশ কর্তৃক অসহযোগিতা এবং হেনস্তারও অভিযোগ আনেন।
এ সময় তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, তার দেবর আব্দুল ওয়াদুদের সাথে তার স্বামী আব্দুস সালামের দীর্ঘদিন ধরে ভূমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছে। আব্দুল ওয়াদুদ এর ভায়রা ফেঞ্চুগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত মিয়া প্রশাসন ও এলাকায় অত্যন্ত প্রভাবশালী হওয়ায় আব্দুল ওয়াদুদ তার দাপট দেখিয়ে চলে। অপরদিকে শওকত মিয়ার আত্মীয় ফেঞ্চুগঞ্জ থানা জামায়াতের আমীর আব্দুল মান্নানের প্রভাবে আব্দুল ওয়াদুদ সর্বত্র তার প্রভাব প্রতিপত্তি বিস্তার করতে সক্ষম হয়েছে।
যার সূত্র ধরে ফেঞ্চুগঞ্জ থানাও শওকত মিয়া, আব্দুল মান্নান ও আব্দুল ওয়াদুদের কথায় উঠেবসে। ফলো শওকত মিয়া গং থানায় প্রভাব বিস্তার করে তার সন্তানদের উপর একাধিক মিথ্যা মামলা দায়ের করে। যা পরবর্তীতে আদালেত মিথ্যা প্রমাণিত হয়।
শেলী জানান, শওকত মিয়া তার স্থানীয় প্রভাবে আমাদের বাড়ি প্রধান রাস্তা দখল করে অবৈধভাবে নর্দমা বানিয়ে রেখেছে। গত ১৭ অক্টোবর শুক্রবার তার ছেলে দিদারুল ইসলাম দিদার মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য মোটর বাইক বিক্রি করে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা নিয়ে সিলেট থেকে বাড়িতে আসে। এ সময় সে খবর পায় ফেঞ্চুগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত মিয়া ও থানা জামায়াতের আমীর আব্দুল মান্নান এর নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক সন্ত্রাসী ও বখাটে ছেলেরা গুলাঘাট জামে মসজিদের সামনে আমার ছোট ছেলে নজরুল ইসলাম পাপ্পুর উপর হামলা করেছে। এই সংবাদ শুনে সে দ্রুত মসজিদের দিকে গেলে মানবিক বোধহীন ওই সন্ত্রাসী বাহিনী দিদারের উপরও হামলা চালায়। এ সময় গ্রামের মৃত শফিকুল ইসলামের পুত্র ওই চক্রের সন্ত্রাসী জুলিয়ান আমার পুত্র দিদারুল ইসলামের পকেটে থাকা ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়।
এদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার দুই ছেলে গুরুতর আহত হয়। সন্ত্রাসীদের হামলায় দিদারের দাঁতের মাড়ি পুরোপুরি বিনষ্ট হয়ে যায় এবং পাপ্পুর মাথা ফেটে রক্তাক্ত জখম হয়। আহতদের সে সময় ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ঘটনার খবর পেয়ে ওই সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলেও আওয়ামী লীগ সভাপতি শওকত মিয়া পুলিশের উপর প্রভাব বিস্তার করে ঘটনার মোড় ঘুরানোর চেষ্টা করেন।
এদিকে এ ঘটনার পর থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নিতে অস্বীকৃতি জানায়। রাজনৈতিক প্রভাবে প্রভাবিত হয়ে ফেঞ্চুগঞ্জ থানা পুলিশ তার ছেলে আহত নজরুল ইসলাম পাপ্পুকে আসামি করে উল্টো আরেকটি মামলা দায়ের করেছে।
সংবাদ সম্মেলনে শেলী বলেন, পুলিশ মামলা না নেয়ায় গত ২০ অক্টোবর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও আমলী আদালত-৩ এ গ্রামের আব্দুল মান্নান, সাজু মিয়া, সিজু মিয়া, রাজু মিয়া, জুলিয়ান, জয়নাল মিয়া, কামরুল ইসলাম কামরান, রেজাউল ইসলাম রেজা, জুমেল ইসলাম, ছলমান মিয়া, কয়ছর মিয়া, শাহীন মিয়া উরফে ল্যাংড়া শাহীন, তারেক মিয়া ও শামীম মিয়াকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলা আমলে নিয়ে ফেঞ্চুগঞ্জ থানাকে প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দেন। কিন্তু ফেঞ্চুগঞ্জ থানায় খবর নিতে গেলে ওসি তার হাতে আদালতের নির্দেশ পৌছেনি জানিয়ে তাদের সাথে দুর্ব্যবহার করেন।
শেলী বেগম জানান, একদিকে প্রশাসনের উপর রাজনৈতিক প্রভাব অপরদিকে সন্ত্রাসী চক্রের ক্রমাগত প্রাণনাশ ও মামলা তুলে নেয়ার হুমকিতে তার পুরো পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।
এমতাবস্থায় এ পরিস্থিতি উত্তোরণে হামলাকারী ও সন্ত্রাসী চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তারের জন্য ডিআইজি, পুলিশ সুপারসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন সকল মহলের সরাসরি হস্তক্ষেপ ও সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।


               

 
 
 

দিরাই উপজেলা সংবাদদাতা:
বিএনপি নির্বাহী কমিটির সদস্য, সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও দিরাই-শাল্লার সাবেক সংসদ সদস্য নাছির উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, আমরা এমন এক সময়ে দিরাই উপজেলা বিএনপির সম্মেলন করতে যাচ্ছি, যখন দেশে অবৈধ সরকারের শাসন চলছে, গণতন্ত্র ও স্বাধীনতা বাকশাল সরকারের হাতে বন্দী, কারাগার হচ্ছে বিএনপি নেতা-কর্মীদের স্থায়ী নিবাস, গুম-খুন হচ্ছে নিত্যদিনের কাজ। আমি বিশ্বাস করি রাত্রী যতই গভীর হয়, ভোরের সূর্য ততটা উদীয়মানের অপেক্ষা করে। তাই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যে কোন সময় এ অবৈধ সরকার পতনের ডাক দিবেন, আমি বিশ্বাস করি দিরাই উপজেলা বিএনপির কমিটিই হবে শেখ হাসিনা পতনের কমিটি। শনিবার দুপুরে স্থানীয় একটি কমিউনিটি সেন্টারে দিরাই উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল লতিফ জেপি, মুজিবুর রহমান মুজিব। উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কামরুজ্জমানের সভাপতিত্বে ও আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আমিরুল ইসলাম এবং উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক জুনেদ আহমদের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন দিরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান তালুকদার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছবি চৌধুরী, আব্দুর রশিদ চৌধুরী, কবির মিয়া, পৌর বিএনপি সভাপতি আহমদ মিয়া, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন চৌধুরী, ইউনিয়ন বিএনপির হুমায়ূন কবির, আলাউর রহমান আলা, আতাউর রহমান, ডাঃ সেলিম আহমদ, জেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক সুহেল আহমদ, উপজেলা যুবদলের সভাপতি মঈন উদ্দিন চৌধুরী মাসুক, পৌর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুহেল তালুকদার, উপজেলা স্বেচ্চাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সজিব রশিদ চৌধুরী, উপজেলা তরুণদল সভাপতি রেজাউল করিম, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাহ আলম, পৌর ছাত্রদলের সভাপতি ওবায়দুর রহমান চৌধুরী মিশু, কলেজ ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন প্রমূখ। সভায় কামরুজ্জামানকে সভাপতি, আব্দুর রশিদ চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক ও মোঃ গোলাপ মিয়াকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১৩১ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী কমিটি কমিটি গঠন করা হয়।
               

 
 
 

সিলেট, ২৫ অক্টোবর:
সিলেট বিভাগের প্রতিটি জেলাতেই প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভুমি হাওরাঞ্চল রয়েছে। জীববৈচিত্র্যে পরিপূর্ন এ অঞ্চলের মানুষের জীবিকায়ন হয় হাওর ভিত্তিক। বছরের অধিকাংশ সময় জলাভুমি ও বাকি সময় শুকনো মৌসুম থাকায় মানুষের জীবিকায়নের ধরণও পরিবর্তন হয়। জলবায়ুর পরিবর্তনের ফলে হাওরাঞ্চলের পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি ঘটছে। হাওরের মানুষের জীবন-জীবিকার সুরক্ষা করতে হবে। একই সাথে হাওরাঞ্চলের সম্পদ ও সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে হবে।
ভার্ড, জেসিস, এফআইভিডিবি, এস.জে.এ,আইডিইএ-এর যৌথ উদ্যোগে একশন এইড বাংলাদেশ-এর ৩০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে ‘হাওড় অঞ্চলের জীবিকায়ন ও ভূমি অধিকার’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা একথা বলেন।
শনিবার নগরীর দরগাহ গেইটস্থ দেশের প্রাচীনতম সাহিত্য প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদ-এর শহীদ সোলেমান হলে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
ভার্ডের নির্বাহী পরিচালক এমরানুল হক কামালের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেটের জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, হাওর রক্ষায় সরকারী ও বেসরকারীভাবে সকলের উদ্যোগে এগিয়ে আসতে হবে। হাওর অঞ্চলের উন্নয়নে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।
ক্বারী মাওলানা রুম্মান আহমেদের পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন একশন এইড বাংলাদেশ-এর প্রোগ্রাম কোয়ালিটি এন্ড ইমপ্যাক্ট ম্যানেজার এ.এস.এম জুয়েল মিয়া। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়-এর নৃ-তত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সঞ্জয় কৃষ্ণ বিশ্বাস।  বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা বারের সাবেক সভাপতি এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম (শাহীন), শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়-এর সমাজকর্ম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবুল কাশেম প্রমুখ।
উল্লেখ্য, একশন এইড বাংলাদেশ-এর ৩০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গন থেকে সকাল সাড়ে ৯টায় এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, হাওর অঞ্চলের অন্যতম গুরুতর সমস্যা হচেছ অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা। এই অঞ্চলের সড়কপথকে চলাচলের জন্য সুগম করে তুলতে হবে। হাওর এলাকার উন্নয়নের জন্য স্থানীয় সরকারকে শক্তিশালী করে আপদকালীন সময়ে ঝুকি মোকাবেলা করতে হবে। হাওরের সার্বিক উন্নয়নের জন্য ‘হাওর উন্নয়ন ব্যাংক’ প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

               

 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ 
ছাতকে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনায় সাড়ে ৩লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট হয়েছে। এ সময় ডাকাতের হামলায় মহিলাসহ ২ব্যক্তি আহত হয়েছে। পালিয়ে যাবার সময় জনতার হাতে আটক এক ডাকাতকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে উপজেলার কালারুকা ইউনিয়নের উদয়পুর গ্রামে। জানাযায়, উদয়পুর গ্রামের হারিছ আলীর বাড়িতে গভীর রাতে ১০-১৫জনের মুখোশধারী ডাকাত দরজা ভেঙ্গে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে লোকজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে আড়াই ভরি স্বর্ণালংকার, ৩০টি শাড়ী, নগদ ৫০হাজার টাকাসহ সাড়ে ৩লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নেয়। এ সময় ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন গৃহকর্তা হারিছ আলীর স্ত্রী ইন্দ্র মালা (৫৫) ও পুত্র কুদরত আলী (১৮)কে ছাতক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পালিয়ে যাবার সময় জনতা হাতে আটক ডাকাত সিলেটের জালালাবাদ ইউনিয়নের এংলাকান্দি-নোয়াগাঁও গ্রামের মৃত আব্দুস সালামের পুত্র ফয়জুল আমীনকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। সিলেটও ছাতকসহ  বিভিন্ন থানায় তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।
               

 
 
 

সিলেট, ২৫ অক্টোবর:
হাজার হাজার জনতার স্বতঃস্ফুর্ত উপস্থিতির মধ্য দিয়ে ঐতিহাসিক সিলেট সরকারী আলীয়া মাদরাসা ময়দানে অনুষ্ঠিত হলো বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের অন্যতম শীর্ষ নেতা জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমীর ভাষা সৈনিক অধ্যাপক গোলাম আযমের গায়েবানা জানাজা। শনিবার বেলা ২ টা ৩০ মিনিটে জানাজা সম্পন্ন হলেও জোহরের নামাজ শেষ হতে না হতেই দলে দলে লোকজন আলীয়া মাদরাসা ময়দানে সমবেত হতে শুরু করেন। অল্প সময়ের মধ্যেই জানাজার নির্ধারিত স্থান লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়। গায়েবানা জানাজার জন্য প্রস্তুতকৃত আলীয়া ময়দান এক বিশাল জনসমুদ্রের রূপ নেয়। জানাজা পূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে জামায়াতের কেন্দ্রীয়, সিলেট মহানগর, জেলা  উত্তর ও দক্ষিণ ছাড়াও ২০ দলীয় জোটের বিভিন্ন শরীক দলের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
সিলেট জেলা ও মহানগরের যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত গায়েবানা জানাজায় ইমামতি করেন জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও সাবেক এমপি অধ্যক্ষ মাওলানা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী।
জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও সিলেট মহানগর আমীর এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের এর সভাপতিত্বে এবং মহানগর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী মাওলানা সোহেল আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত জানাজা পূর্ব সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, ভাষা সৈনিক অধ্যাপক গোলাম আযম শুধু বাংলাদেশ নয় সারা বিশ্বের ইসলামী আন্দোলনের একজন সাহসী সিপাহশালার। যার প্রমাণ এই ইসলামী চিন্তাবিদের গায়েবানা জানাজা শুধু বাংলাদেশেই নয় সারা বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মানুষ স্বতঃস্ফুর্তভাবে জানাজায় অংশ নিয়ে  তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছে। সরকার জীবনের শেষ সময়ে  এসে জাতির এই অভিভাবকের প্রতি বিচারের নামে অবিচার করে নিষ্ঠুর অমানবিক আচরণ করে তাঁকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছে। এর জন্য জনগণ আওয়ামীলীগকে কোনদিন ক্ষমা করবে না। আল্লাহর জমীনে তাঁর দ্বীন প্রতিষ্ঠার আন্দোলনকে আরো বেগবান করার মধ্য দিয়ে ভাষা সৈনিক অধ্যাপক গোলাম আযমের রেখে যাওয়া কাজ সম্পন্ন করতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী অঙ্গিকারাবদ্ধ।  প্রবাসে বসবাসরত অধ্যাপক গোলাম আযমের সন্তানদের জানাজায় আসতে বাধা দিয়ে সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসার একটি নিকৃষ্টতম অধ্যায়ের সূচনা করেছে। গোলাম আযম দেশ, জাতি, ইসলাম ও গোটা বিশ্বের  ইসলামী আন্দোলনে বিশেষ অবদান রাখায় মুসলিম বিশ্ব তাঁকে আজীবন শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে।
 জানাজা পূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও সিলেট বিভাগীয় আঞ্চলিক দায়িত্বশীল অধ্যাপক ফজলুর রহমান, বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন-এর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক হারুনুর রশিদ খান, ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট মাওলানা আব্দুর রকীব, সিলেট জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ও সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম, সিলেট জেলা দক্ষিণ জামায়াতের আমীর মাওলানা হাবিবুর রহমান, জেলা  উত্তরের  আমীর  হাফিজ আনোয়ার হোসাইন খান, বিএনপি নেতা ও বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ লেঃ কর্ণেল  (অব.) সৈয়দ আলী আহমদ,  খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগর সহ-সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল হান্নান তাপাদার, ইসলামী ঐক্যজোট সিলেট মহানগর সভাপতি মুফতি ফয়জুল হক জালালাবাদী, জেলা সভাপতি মাওলানা আসলাম রহমানী, লেবার পার্টির মহানগর সভাপতি মাহবুবুর রহমান খালেদ,  জেলা দক্ষিণ জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী ও  দক্ষিণ সুরমা উপজেলা সাবেক চেয়ারম্যান মাওলানা লোকমান আহমদ, জেলা উত্তর সেক্রেটারী মাওলানা ইসলাম উদ্দিন, সিলেট মহানগর সহকারী সেক্রেটারী মো: শাহজাহান আলী, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল্লাহ আল হোসাইন, জৈন্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন, সিলেট মহানগর ছাত্রশিবির সেক্রেটারী মাশুক আহমদ, জেলা পূর্বের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাবিবুল্লাহ দস্তগীর ও জেলা পশ্চিমের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ প্রমুখ।
অধ্যাপক ফজলূর রহমান বলেন, বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের অন্যতম দায়িত্বশীল অভিভাবক অধ্যাপক গোলাম আযমের প্রতি জুলুম করে তাঁকে শহীদ করা হয়েছে। তিনি দেখতে যেমন সুন্দর ছিলেন তার চেয়েও বেশী সুন্দর ছিল তাঁর আমল-আখলাক ও জ্ঞানের পরিধি। যারা তাঁর প্রতি জুলুম ও নিষ্ঠুর  আচরণ করেছে আল্লাহ দুনিয়াতেই তার নমুনা দেখাবেন। আর পরকালে তাদের জন্য অপেক্ষা করছে কঠিন আজাব।
দিলদার হোসেন সেলিম বলেন, প্রত্যেক প্রাণীকেই মৃত্যুর সাধ নিতে হবে।  তাই  আমাদের সবাইকে একদিন চলে যেতে হবে। দেশের নাস্তিক মুরতাদরা আরাম আয়েশে দিন যাপন করে আর ইসলামী নেতৃবৃন্দের উপর জুলুম নিপীড়ন করা হয়।  অধ্যাপক গোলাম আযম স্বাভাবিক মৃত্যু বরণ করলেও সরকার এর দায় এড়াতে পারে না। তাই আমাদেরকে নাস্তিক মুরতাদদের পৃষ্ঠপোষক আওয়ামী সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগ্রাম গড়ে তুলতে হবে।
এডভোকেট মাওলানা আব্দুর রকীব বলেন, অধ্যাপক গোলাম আযম প্রখর মেধা ও জ্ঞান নির্ভর একজন ভাষা সৈনিক ছিলেন। তিনি বিশ্বাস করতেন এদেশের  ধর্মপরায়ন মানুষগুলোকে ঐক্যবদ্ধ করে  এদেশে কুরআনের দ্বীন প্রতিষ্ঠা সম্ভব। তাই তিনি প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিয়ে বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের শীর্ষ ব্যক্তিদের মধ্যে স্থান করে নিতে সক্ষম হয়েছেন। শুধু বাংলাদেশ নয় বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের ইতিহাসে অধ্যাপক গোলাম আযমের নাম স্বর্ণাক্ষরে লিখা থাকবে।
অধ্যাপক আব্দুল হান্নান তাপাদার বলেন, বিচারের নামে অবিচার করে বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের অকুতোভয় সিপাহশালার ভাষা সৈনিক অধ্যাপক গোলাম আযমকে দুনিয়া থেকে বিদায় করা হয়েছে। জাতি তাঁর উপর জুলুমকারী এই সরকারকে কখনই ক্ষমা করবে না।
সভাপতির বক্তব্যে এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের বলেন, ভাষা সৈনিক অধ্যাপক গোলাম আযমকে দেশের মানুষ কতটা ভালোবাসে  আজকে সিলেটের আলীয়া মাদরাসা ময়দানের এই গায়েবানা জানাজা একটি জীবন্ত প্রমাণ। ইসলামী আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়ার অপরাধে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থার রূপকার ক্ষণজন্মা রাজনৈতিক নেতা অধ্যাপক গোলাম আযমের প্রতি আওয়ামী ফ্যাসিষ্ট সরকার চরম ও নিষ্ঠুর অমানবিক আচরণ করেছে। এ জন্য  উপস্থিত লাখো জনতাকে সামনে নিয়ে মহান আল্লাহর কাছে বিচার প্রার্থনা করলাম। তিনি আজীবন ইসলামের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। দ্বীন প্রতিষ্ঠার তাগিদেই তিনি তাবলীগ জামায়াত ও ইকামতের দ্বীনের কাজে সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। অধ্যাপক গোলাম আযম রচিত ইসলামিক বইয়ের ব্যাপক ভান্ডার সারা দুনিয়ায় ইসলামী  আন্দোলনের কর্মীদের জন্য এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

               

 
 
 

সিলেট, ২৫ অক্টোবর:
শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন সিলেট মহানগর শাখার দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন শনিবার জেলা বারের ২নং হলে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক হারুনুর রশীদ খান। মাওলানা সোহেল আহমদের সভাপতিত্বে এতে প্রধান বক্তা  ছিলেন-মহানগর জামায়াতের আমীর এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের। এডভোকেট জামিল আহমদ রাজুর পরিচালনায় জয়নাল আবেদীন, মাওলানা লোকমান আহমদ, শাহজাহান আলী, ফখরুল ইসলাম খান, উবায়দুল হক শাহীন, আক্কাছ আলী ও বদরুজ্জামান প্রমুখ।       

 
 
 

সিলেট, ২৫ অক্টোবর: যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ বিএনপির ৬৪ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের আলালের নিজ বাসার নিচ থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।
জানা যায়, মহানগর বিএনপির পুনর্গঠনকে কেন্দ্র করে সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের মোহাম্মদপুরের বাসায় আসেন স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মীরা তার বাসায় আসেন। পরে নেতাকর্মীরা বের হয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ আলালসহ ৬৪  জনকে আটক করে।   

 
 
 

সিলেট, ২৫ অক্টোবর:
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। মগবাজারের পারিবারিক কবরস্থানে তার বাবার কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়েছে।
শনিবার বেলা ৩ টা ৩০ মিনিটে তার দাফন সম্পন্ন হয়।
ছেলে আব্দুল্লাহিল আমান আযমী ও তার পরিবারের দুইজন সদস্য গোলাম আযমের লাশ কবরে রাখেন।
এ সময় জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান, কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক অধ্যাপক তাসনীম আলম, ঢাকা মহানগরী জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিনসহ কেন্দ্রীয় ও মহানগর জামায়াতের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে শনিবার বেলা ১টা ৪৮ মিনিটে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইমামতি করেন তার ছেলে আব্দুল্লাহিল আমান আযমী।
শনিবার বেলা ১টায় তার লাশবাহী গাড়িটি বায়তুল মোকাররমে পৌঁছে। মসজিদের উত্তর গেটে তার লাশ রাখা হয়। বেলা ১২টা ১৯ মিনিটের দিকে তার লাশবাহী গাড়ি মগবাজার থেকে বায়তুল মোকাররমের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে।
যোহরের নামাজের পর আল্লাহু আকবার ধ্বনি তোলে হাজার হাজার মুসল্লি ও দলীয় নেতা কর্মীরা। এরপর জানাজা শুরুর আগ পর্যন্ত পুরো বায়তুল মোকাররম ও তার আশপাশের এলাকা নীরব-নিস্তব্ধ হয়ে যায়। অত্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবেই অনুষ্ঠিত হয় গোলাম আযমের নামাজে জানাজা।
জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম ও তার আশপাশের এলাকায় নেয়া হয়েছিল প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা। প্রচ- গরম হওয়ায় মুসল্লিদের বিশুদ্ধ খাবার পানি পান করানোর ব্যবস্থা নেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ।           

 
 
 

ঢাকা, ২৪ অক্টোবর : জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযমের মরদেহ একনজর দেখতে তার মগবাজার বাসায় জামায়াত-শিবির নেতাকর্মী ও সমর্থকদের ঢল নেমেছে। শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে জামায়াত নেতা গোলাম আযমের মরদেহ নিজ বাসভবনে নিয়ে আসা হয়।

অধ্যাপক গোলাম আযমের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে সেখানে উপস্থিত রয়েছেন জামায়াতের আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর ছেলে ব্যারিস্টার নাজিব মোমেন, জামায়াতের নায়েবে আমির মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ছেলে মাসুদ সাঈদী, জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা আতাউর রহমান সরকার।

এই জামায়াত নেতার বিদেশে থাকা ৫ ছেলে দেশে ফিরলেই মরদেহ দাফন করা হবে।

মরহুমের ছেলে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আবদুল্লাহিল আযমী জানান, মরদেহ গোসল শেষে বাসায় একটি লাশবাহী গাড়িতে রাখা হবে।

এদিকে নাশকতার আশঙ্কায় অধ্যাপক গোলাম আযমের বাসার সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, জামায়াতের সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযম বৃহস্পতিবার রাত ১০টা ১০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি...রাজিউন)।

এর আগে বৃহস্পতিবার তাকে প্রিজন সেল থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়। এর আগে ৩ বার গোলাম আযমকে অসুস্থ অবস্থায় সিসিউতে ভর্তি করা হয়েছিল। বুধবার রাত থেকে তিনি কথা বলতে পারছিলেন না। তখন থেকেই শরীরে রক্তের চাপ পাওয়া যাচ্ছিল না বলে জানান চিকিৎসকরা।

গত বছরের ১৫ জুলাই মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে গোলাম আযমকে ৯০ বছরের কারাদন্ডাদেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। বয়স ও অসুস্থতার বিবেচনায় তাকে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডাদেশের পরিবর্তে এ সাজা দেন ট্রাইব্যুনাল।               

 
 
 
 
 
কবিতা
শিল্প-সাহিত্
মিডিয়া
ইসলাম
Image Missing
 
 
বিনোদন
বিনোদন
বিচিত্রা
বিচিত্রা
মুক্তমঞ্চ
Image Missing
 
 
খেলাধুলা
খেলাধুলা
স্বাস্থ্য
স্বাস্থ্য
তথ্য-প্রযুক্তি
তথ্য-প্রযুক্তি
 
 
সংবাদদাতা
জীবন সদস্য
সম্পাদক
 
দেশ বিদেশ
 
 
 

ঢাকা : রাজধানীতে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) মোতায়েন করা হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীতে ১০ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়। বিজিবি’র জনসংযোগ কর্মকর্তা মহসীন রেজা শীর্ষ নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রাজধানীর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির যাতে অবনতি না হয় সেজন্য বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।
নগরীতে দশ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
প্রসঙ্গত, আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে সম্মিলিত ইসলামি দল সমূহ রোববার সারাদেশে সকাল-সন্ধা ২৪ ঘণ্টার হরতাল পালন করার ঘোষণা দিয়েছে               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২৫ অক্টোবর :
লতিফ সিদ্দিকীর সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে ডাকা হরতালে কোন প্রকার বাধা দেয়া হলে পরিণাম ভয়াবহ হবে এমন হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন সম্মিলিত ইসলামি দল সমূহের নেতৃবৃন্দ।
নেতৃবৃন্দ বলেন, নিছক ঈমান ও দ্বীন রক্ষার তাগিদেই আমাদের রোববারের হরতাল। আমরা সরকারকে কয়েক দফা সময় বেধে দেয়ার পরও সরকার স্ব-ঘোষিত ধর্মদ্রোহী, মুরতাদ লতিফের বিরুদ্ধে কোন মামলা করেনি, তাকে গ্রেফতারের ব্যাপারে কোন কার্যকরী পদক্ষেপও গ্রহণ করেনি।
প্রিয় নবী (সা), পবিত্র হজ্জ ও তাবলিগ জামাত নিয়ে তার কটূক্তি, ধৃষ্টতা ও চরম বেয়াদবীর সর্বোচ্চ শাস্তি না হলে নাস্তিক-মুরতাদদের দৌরাত্ম্য বেড়ে যাবে। ইসলামের দুশমন, মুরতাদ গোষ্ঠীকে যাতে আস্কারা ও রাষ্ট্রীয়ভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করা না হয় সে ব্যাপারে হুঁশিয়ারি করতেই রোববারের ইসলামি দল সমূহের হরতালে সকল ঈমানদার মুসলমানকে সক্রিয়ভাবে মাঠে থাকার আহবান জানাচ্ছি।
নেতৃবৃন্দ বলেন; আমরা আশা করি আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াতসহ সকল রাজনৈতিক দল ও পেশাজীবী সংগঠনের যারা আল্লাহ, মহানবী (সা), হজ্জ ও ইসলামে বিশ্বাস করেন সকলেই এ ঈমানী হরতালে সমর্থন দেবেন এবং সক্রিয় অংশ গ্রহণ করবেন। সরকার আসে, সরকার যায় ইসলামের দুশমনদের পক্ষ নিয়ে কেউ পার পাবে না।
এ দিকে হরতালের সমর্থনে শনিবার রাজধানীর বিভিন্ন থানায় মিছিল ও সমাবেশ করেছে ইসলামি দল সমূহের নেতাকর্মীরা।
           

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২৫ অক্টোবর :
বাবার ভুল-ত্রুটির জন্য মাফ চেয়েছেন গোলাম আযমের ছেলে আব্দুল্লাহ হিল আমান আযমী। শনিবার বাদ যোহর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে গোলাম আযমের জানাজা পড়ানোর আগে আযমী উপস্থিত নেতাকর্মী ও মুসল্লিদের কাছে এভাবে মিনতি করেন।
গোলাম আযমের ছেলে আযমী বলেন, আবার বাবা কারও মনে কোন কষ্ট দিয়ে থাকলে সন্তান হিসেবে আমি করজোরে মিনতি করছি, আপনারা আমার বাবাকে মাফ করে দেবেন।
তিনি বলেন, আমার বাবা জীবদ্দশায় জ্ঞাত হয়ে কখনও কাউকে দুঃখ দেননি, কষ্ট দেননি। তিনি অত্যন্ত সাধারণ জীবন যাপন করেছেন। অথচ তাকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে কারাবন্দি করে রাখা হয়েছিল। আপনারা দোয়া করবেন আমার বাবাকে যেন আল্লাহ শহীদের মর্যাদা দান করেন।
আযমী বলেন, আমার বাবা এক মিথ্যা মামলায় এক হাজার দিনেরও বেশি কারাবন্দি অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করেছেন। তিনি ইসলাম প্রিয় এ জমিনে ইসলাম কায়েম করতে আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন। তার ইন্তেকাল মানে এদেশ থেকে ইসলামের বিদায় নয়। লাখো লাখো গোলাম আযম এদেশে ইসলামের ঝান্ডা প্রতিষ্ঠা করবেন               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২৫ অক্টোবর :
তিনদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে ১১টায় আবুধাবি বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান সংযুক্ত আরব আমিরাতের সমাজকল্যাণ মন্ত্রী মরিয়ম বিনতে মোহাম্মদ খালফান আল রুমি। এ সময় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরানও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে সকাল সাড়ে ৮টায় বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আবুধাবির উদ্দেশ্যে রওনা হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সফরের প্রথম দুই দিন আবুধাবি এবং শেষ দিন দুবাই ও রাস আল খায়েমে যাবেন প্রধানমন্ত্রী। এই সফরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন তার ছোট বোন শেখ রেহানার ছেলে রেদওয়ান সিদ্দিক ববি, তার স্ত্রী পেপ্পি সিদ্দিক ও তাদের সন্তানরা। এছাড়া মন্ত্রিসভার সদস্য, সংসদ সদস্য,  প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিবসহ ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন।               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২৫ অক্টোবর: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পায়ের নিচে মাটি নেই, প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আপনি নিজের দিকে তাকান, নিজের কথা ভাবুন। আপনি তো নিজেই তাসের ঘরে বসে আছেন বালু চরের মতো। যার কোনো ভিত্তি নেই।
শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের মিলনায়তনে ‘ভাষা সৈনিক অলি আহাদের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন।
মির্জা ফখরুল বলেন, যেখানে মিটিং, মিছিল, সভা, সমাবেশ ও ভিন্নমত পোষণ করা যায় না সেখানে গণতন্ত্র থাকে না। যারা বলেন সেখানে গণতন্ত্র আছে তারা নিসন্দেহে অজ্ঞান পার্টি।
এসময় সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, তারা কাউকে সম্মান করতে জানে না।
গণতন্ত্র ধ্বংস করতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় বসে আছেন বলে অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহম্মদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন- বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিকুল হক, ডা. জাফরুল্লাহ  চৌধুরী, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালাহ উদ্দীন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল, বিএনপির সহসভাপতি শমসের মবিন চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান সোহেল প্রমুখ।       

 
 
 
 
 
 

ম্যানচেস্টার: বাংলাদেশ সরকারের সাবেক ডাক, তার ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকী কর্তৃক মহানবী (সাঃ) ও পবিত্র হজ্ব সম্পর্কে কটূক্তির প্রতিবাদে এবং কুখ্যাত এই কুলাঙ্গারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে উপমহাদেশের প্রখ্যাত ওলী শামসুল উলামা আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলাহ (র.)-এর হাতেগড়া সংগঠন আনজুমানে আল ইসলাহ গ্রেটার ম্যানচেস্টার ডিভিশন এবং ওল্ডহ্যাম শাখার যৌথ উদ্যোগে গত মঙ্গলবার ওল্ডহ্যামস্থ দারুল হাদীস লাতিফিয়া নর্থওয়েস্টের কনফারেন্স হলে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। আনজুমানে আল ইসলাহ গ্রেটার ম্যানচেস্টার ডিভিশনের সভাপতি জনাব মাওলানা ফখরুল হাসান রুতবাহ’র সভাপতিত্বে ও জেনারেল সেক্রেটারী জনাব মাওলানা খায়রুল হুদা খান এর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন আনজুমানে আল ইসলাহ ইউকের কেন্দ্রিয় সদস্য ও দারুল হাদীস লাতিফিয়া নর্থওয়েস্টের প্রিন্সিপাল জনাব মাওলানা সালমান আহমদ চৌধুরী।
আনজুমানে আল ইসলাহ ওল্ডহ্যাম শাখার প্রেসিডেন্ট হাফিজ আসকির মিয়ার স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে সূচিত মাহফিলে উলামায়ে কিরাম ও বিশিষ্টজনদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুফতী মাওলানা আবদুল ওয়াদুদ, মাওলানা আবূ সালেহ মামুন, আল ইসলাহ হাইড শাখার সেক্রেটারী মাওলানা আবদুল হামিদ, মাওলানা নাসির উদ্দিন, মাওলানা আদুল মজিদ, মাওলানা ফখরুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান কাইয়ুম, মাওলানা আশিকুর রহমান, মাওলানা আবুল কালাম, মাওলানা রফিকুল হক, ক্বারী আমির উদ্দিন, ক্বারী আলী হায়দার, মাওলানা আবদুল বাছিত আশরাফ, হাফিজ মাওলানা আবদুল বাছিত, হাফিজ মাওলানা লুৎফুর রহমান, শেখ টিপু আহমদ, মুবশ্বির আলী, হাফিজ মুহিবুল ইসলাম, মাওলানা রেদওয়ান উদ্দিন প্রমুখ।
প্রতিবাদ সভায় বক্তাগন ইসলামের মৌলিক পাঁচটি বিধানের অন্যতম হজ্জ নিয়ে লতিফ সিদ্দিকীর বেফাস মন্তব্যে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। নেতৃবৃন্দ বলেন, লতিফ সিদ্দিকী হজ্জ নিয়ে যে বিরূপ মন্তব্য করেছেন তা সরাসরি কুরআন সুন্নাহ অবমাননার শামিল। এরূপ মন্তব্যের মাধ্যমে তিনি সালমান রূশদী, তসলিমা নাসরিন ও দাউদ হায়দারদের পদাঙ্ক অনুসরণ করেছেন। তাকে জনসমক্ষে প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা ও মন্তব্য প্রত্যাহার করে খালিস তওবা করতে হবে। নতুবা বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলিম জনতা তাকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করবে। নব্বই ভাগ মুসলমানের এ দেশে তার স্থান হবে না। নেতৃবৃন্দ বলেন, লতিফ সিদ্দিকীর স্মরণ করা উচিত তসলিমা নাসরিনসহ যারা এদেশে ইসলামের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে, মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়েছে তাদের পরিণতি শুভ হয়নি। বক্তাগন স্বঘোষিত এই মুরতাদকে দেশে এনে দৃষ্টান্তমূলক সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান।

 
 
 
 
 
 

ঢাকা: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযমের ইন্তেকালের বিষয়টি কেবল দেশের গণমাধ্যমেই নয়, জায়গা করে নিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোতেও। অধ্যাপক গোলাম আযমের মৃত্যুর সংবাদ নিয়ে অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বিবিসি, আল-জাজিরা, গার্ডিয়ান, রয়টার্স, ডন, এনডিটিবিসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম।

‘বাংলাদেশ ইসলামিস্ট লিডার গোলাম আজম ডাইজ এইজড নাইনটি ওয়ান’ শিরোনামে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘বাংলাদেশ বৃহৎ ইসলামিক রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামীর সাবেক প্রধান গোলাম আজম ৯১ বছর বয়সে মারা গেছেন।’’

এতে বলা হয়, ‘‘১৯৭১ সালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে গোলাম আজমকে ৯০ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করে দেশটির আদালত।২০১৩ সালের জুলাই মাসে দেয়া এ রায়ের পর পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে জামায়াতে ইসলামীর সমর্থকরা।’’

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘গোলাম আযম তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রত্যাখান করেছেন। তার দলের সমর্থকরা এ রায়কে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করেছে।’’

‘বাংলাদেশি লিডারে জেইলড ফর ওয়ার ক্রাইম ডাইজ’ শিরোনামে আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক প্রধান গোলাম আযম হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত সরকারি প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। মানবতাবিরোধী অপরাধে তাকে গত বছর সাজা দিলে দেশে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে।’’

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘গোলাম আযম ২০০০ সাল পর্যন্ত জামায়াতের আমিরের দায়িত্বে ছিলেন। তাকে দলটির আধ্যাত্মিক নেতা হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ৭১ এর যুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ অস্বীকার করেছে জামায়াতে ইসলাম।’’

এতে বলা হয়, ‘‘বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ট্রাইবুনাল গঠনের সমালোচনা করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, এটি করা হয়েছে বিরোধীদলকে দুর্বল করার টার্গেটে।’’

‘ফরমার বাংলাদেশি ইসলামিস্ট লিডার জেইলড ফর ওয়ার ক্রাইমস ডাইজ ইন প্রিজন’ শিরোনামে গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক প্রধান, যার বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধে দেয়া রায়ে গত বছর দেশে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়েছিলো, তিনি মারা গেছেন।’’

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘গোলাম আজমকে জামায়াতের আধ্যাত্মিক নেতা হিসেবে বিবেচনা করা হয়। জামায়াত দাবি করছে এ আদালত রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলক। অপরদিকে সরকার তা অস্বীকার করছে।’’

‘বাংলাদেশ ইসলামিস্ট লিডার কনভিকটেড অব ওয়ার ক্রাইমস ডাইজ’ শিরোনামে রয়টার্স এর প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘বাংলাদেশে মানবতাবিরোধী অপরাধে ৯০ বছর সাজাপ্রাপ্ত জামায়াতের সাবেক প্রধান কারাগারে মারা গেছেন।’’

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘গোলাম আযমসহ দলটির অন্যান্য নেতাদের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধে দেয়া রায়ে সহিংস বিক্ষোভ দেখিয়েছে জামায়াতে ইসলামীর নেতা-কর্মীরা। তারা এ ট্রাইবুনালকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলক বলে দাবি করছে।’’

এতে বলা হয়, ‘‘সমালোচকরা বলছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জামায়াত এবং বিরোধীদলকে দুর্বল  করতে ট্রাইবুনাল গঠন করেছেন। মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলছে, ট্রাইবুনালে আন্তর্জাতিক মান রক্ষায় ঘাটতি রয়েছে।’’

‘গোলাম আজম, জেইলড বাংলাদেশি ইসলামিস্ট লিডার, ডাইজ’ শিরোনামে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক প্রধান পিজন সেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তিনি ২০০০ সাল পর্যন্ত জামায়াতের নেতৃত্বে ছিলেন।’’

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘গোলাম আজমকে নিজেদের আধ্ম্যাতিক নেতা মনে করে জামায়াতে ইসলামীর নেতা-কর্মীরা। দলটি বলছে ট্রাইবুনাল রাজনৈতিক উদ্দেশ্য গঠন করা হয়েছে।’’

‘জেইলড জেআই লিডার গোলাম আজম ডাইজ ইন ঢাকা’ শিরোনামে ডন এর প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক প্রধান গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকার একটি হাসপাতালে মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯১ বছর।’’

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘গোলাম আজমের আইনজীবী তাজুল ইসলাম জানান, গোলাম আজম বয়সজনিত নানা সমস্যায় ভোগছিলেন।তাকে হাসপাতালে পর্যাপ্ত সেবা প্রদান করা হয়নি।’’               

 
 
 
 
 
 

তৈয়বুর রহমান টনি নিউইয়র্কঃ
আজ বৃহস্পতিবার ২৩ অক্টোবর দুপুর ২:০০ টায় নিউ ইয়র্ক কুইন্সের জ্যামাইকায় অবস্হিত জ্যামাইকা এভিনিউ এবং ১৬২ স্ট্রীটে পুলিশের গুলিতে এক পথচারীর মৃত্যু ঘটেছে। জ্যামাইকা এভিনিউ এর রাস্তায় এক ব্যাক্তি ছুরি দিয়ে পুলিশের মাথায় উপুর্যপরি আঘাত করতে থাকলে পুলিশ অফিসার উক্ত ব্যাক্তিকে গুলি করলে পথচারির মৃত্যু ঘটে। জানা গিয়েছে যে, পুলিশ অফিসারের এক গ্রুপ রাস্তার দাড়িয়ে ফ্রি ল্যান্স ফটো্গ্রাফারকে পোজ দিতে ছিলো ছবি তোলার জন্য। সেই সময় এক ব্যাক্তি একটি ধারালো অশ্র দিয়ে পুলিশ অফিসারদের আঘাত করতে থাকে। আত্ম রক্ষার্থে এক পুলিশ অফিসার গুলি করে উক্ত ব্যাক্তিকে।
পুলিশ গুলি ছোড়তে থাকলে পথচারি এক মহিলা আঘাতপ্রাপ্ত হয়। এক পথচারির সাথে কথা বলে জানা যায় যে ধারালো অশ্র বহনকারী ব্যাক্তিটি তার গার্লফ্রেন্ডের সাথে ঝগড়া/বিবাদের কারনে পাগলের মতো আচরন করতে থাকে। যার পরিনামে এই ঘটনাটি ঘটে।  
ধারালো অশ্র দিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসারটি বর্তমানে জ্যামাইকা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার অবস্হা আশংকা জনক। ঘটনাস্হলে আরো কয়েকজন পুলিশ অফিসার আঘাত প্রাপ্ত হয়। তদন্তের জন্য বর্তমানে জ্যামাইকা এভিনিউ এর ঘটনাস্হলটি পুলিশ চারিদিক দিয়ে বেরিকেট দিয়ে রেখেছে।                

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২৪ অক্টোবর: জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযমের মৃত্যুর পর রাজধানীতে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার ভোর থেকে মগবাজারে জামায়াতের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও এর আশপাশের এলাকাজুড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সদস্যরা সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রয়েছেন।

এ ছাড়া গণভবনের আশপাশের এলাকা থেকে শুরু করে ফার্মগেট, বাংলামোটর, শাহবাগ, হাইকোর্ট, পল্টন, কাকরাইল, রামপুরা এলাকায় জলকামানসহ অত্যাধুনিক সাজোয়া যান নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের অবস্থান করতে দেখা গেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি ঠেকাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে সকাল পৌনে ৮টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে অধ্যাপক গোলাম আযমের মরদেহ পুলিশি প্রহরায় মগবাজারের কাজী অফিস গলির নিজ বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, জামায়াতের সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযম বৃহস্পতিবার রাত ১০টা ১০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি...রাজিউন)।

এর আগে বৃহস্পতিবার তাকে প্রিজন সেল থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়। এর আগে ৩ বার গোলাম আযমকে অসুস্থ অবস্থায় সিসিউতে ভর্তি করা হয়েছিল। বুধবার রাত থেকে তিনি কথা বলতে পারছিলেন না। তখন থেকেই শরীরে রক্তের চাপ পাওয়া যাচ্ছিল না বলে জানান চিকিৎসকরা।           

 
 
 
 
 
 

নিউজডেস্ক: ব্যারিস্টার এম এ সায়েম বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মানবাধিকারবিষয়ক উপদেষ্টার পদ থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। একই সঙ্গে যুক্তরাজ্য বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের কার্যক্রম থেকেও নিজেকে বিরত রাখবেন।

বৃহস্পতিবার পূর্ব লন্ডনে এক সংবাদ সম্মেলনে ব্যারিস্টার সায়েম এ ঘোষণা দেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি লিখিত বক্তব্যে জানান, তার ল’ ফার্মের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের ভিত্তিতে বৃটিশ হোম অফিসের কর্মকর্তারা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এটি তার অন্যান্য মামলার মধ্যে একটি অন্যতম।

পেশাগত একটি বিষয়ের সঙ্গে রাজনৈতিক কর্মকান্ডকে টেনে এনে তারেক রহমানের ভাবমূর্তি নষ্ট করার অপপ্রয়াস হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি পদত্যাগের ঘোষণা দেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান,  গত ২১ অক্টোবর ইউকে বর্ডার এজেন্সি অন্য দুটি প্রতিষ্ঠানের চারজন ব্যাক্তির সঙ্গে তাকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের হেফাজতে নিয়ে যায়। পুরো বিষয়টি একান্তই তার পেশাগত, যার সঙ্গে দল ও রাজনীতির কোন সম্পর্ক নেই। কিন্তু কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উদ্দেশ্যমূলক, বিভ্রান্তিকর ও মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে। কিছু সংবাদ মাধ্যম উদ্দেশ্যমূলকভাবে এ ঘটনার সঙ্গে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নাম জড়িয়ে সংবাদ পরিবেশন করে যা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

তিনি জানান, এ অবস্থায় প্রকৃত সত্য উদঘাটন না হওয়া পর্যন্ত তিনি দলীয় পদে থাকা সমীচীন মনে করছেন না। তাই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তারেক রহমানের উপদেষ্টার পদ ত্যাগের ঘোষণা দেন তিনি।

একই সঙ্গে তিনি যুক্তরাজ্য বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকেও দায়িত্ব পালনে বিরত থাকার ঘোষণা দেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুস, সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমদ, তারেক রহমানের মানবাধিকার বিষয়ক উপদেষ্টা ব্যারিস্টার এম এ সালাম, যুক্তরাজ্য বিএনপির সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ, আখতার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাজ উদ্দীন, আইন বিষয়ক সম্পাদক বিপ্লব পোদ্দার প্রমুখ।           

 
 
 
 
যোগাযোগ করুন..
01712 247 900

dainiksylhet@gmail.com